শিক্ষার মান বাড়াতে সকলকে আরো উদ্যোগী ও সচেতন হতে হবে: জেলা প্রশাসক

0
604

poto-1
জগন্নাথপুর সংবাদদাতা: সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক শেখ রফিকুল ইসলাম বলেছেন, শিক্ষার মান বাড়াতে সকলকে আরো উদ্যোগী ও সচেতন হতে হবে। তা হলেই কাঙ্খিত প্রত্যাশা পূরণ হবে। তিনি বলেন, শিক্ষার অগ্রযাত্রাকে বিপ্লবে রুপান্তিত করতে হলে আমাদেরকে প্রথম থেকে কাজ শুরু করতে হবে। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের প্রতিদিন স্কুলে পৌছে দেয়া ও খোঁজ খবর রাখা অভিভাবকদের দায়িত্ব। এ ক্ষেক্ষে সব থেকে বেশি অবদান রয়েছে মায়ের। নিয়মিত স্কুলে উপস্থিত থেকে পাঠদান ও নৈতিক আদর্শ শিক্ষা দেয়া হচ্ছে শিক্ষকদের দায়িত্ব। দায়িত্ব পালনে শিক্ষকদের আরো সচেতন হতে হবে। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের স্কুল মুখি করতে সব সময় স্কুলে আনন্দঘন পরিবেশ তৈরী করতে হবে। বেশি বেশি করে স্কুলে খেলাধূলা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, মা-সমাবেশ, অভিভাবক সমাবেশ ও বিভিন্ন বিতর্ক প্রতিযোতিার আয়োজন করতে। প্রতিটি স্কুলের শিক্ষক সংকট দুরীকরনে ও অবকাটামো উন্নয়নে সরকারের পাশাপাশি স্থানীয় ধনাঢ্য ব্যক্তিদের এগিয়ে আসতে হবে। তা হলেই শিক্ষার মানোন্নয়নে কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌছানো সম্ভব হবে। মনে রাখবেন শিক্ষার হারে সুনামগঞ্জ জেলার মধ্যে এখনো জগন্নাথপুর এগিয়ে রয়েছে। তাই জগন্নাথপুরের এ সাফল্য ধরে রাখতে যার-যার অবস্থান থেকে অবদান রাখতে হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের মজিদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উদ্যোগে শিক্ষার মানোন্নয়ন ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্বাস্থ্য কার্ড বিতরণ উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ হুমায়ূন কবিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আকমল হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান মুক্তদির আহমদ মুক্তা, কলকলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সাজ্জাদুর রহমান, সাবেক চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম ও শাহজালাল মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ এমএ মতিন। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, মজিদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুল মানান, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোশাহিদ হোসেন, শিক্ষক সাব্বির আহমদ চৌধুরী, আজমল হোসেন, অভিভাবক সিরাজ মিয়া। অনুষ্ঠান শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন শিক্ষক মাওলানা আব্দুল করিম ও গীতা পাঠ করেন শিক্ষিকা সাথী রাণী তালুকদার। এ সময় জগন্নাথপুর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) রফিকুল ইসলাম, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) সেলিম খান, তরুন সমাজকর্মী এমদাদুর রহমান সুমনসহ এলাকার গন্যমান্য লোকজন উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান শেষে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্বাস্থ্য কার্ড বিতরণ করেন অতিথিরা। এছাড়া সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক শেখ রফিকুল ইসলাম জগন্নাথপুর উপজেলার মিরপুর ইউনিয়নের শ্রীরামসি বদ্ধভূমি, শ্রীরামসি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন ও শ্রীরামসি উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন।

Print Friendly, PDF & Email