ষড়যন্ত্রে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি আবারও নতুন করে কৌশল নিয়েছে: হানিফ

0
149
Hanif

ঢাকা: আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, ষড়যন্ত্রে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি আবারও নতুন করে কৌশল নিয়েছে। তারা এখন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচন নিয়ে একটি অশুভ চক্রান্তে লিপ্ত আছে। ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও ঢাকা সিটি করপোরেশনের প্রাক্তন মেয়র মোহাম্মদ হানিফের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা, মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। সোমবার দুপুরে রাজধানীর আজিমপুরের একটি কমিউনিটি সেন্টারে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন শুরই হয় নাই।এরই মধ্যেই নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নেই, প্রশাসন পক্ষপাতিত্ব করছে-বিএনপি এমন নানা ধরনের অভিযোগ করছে। হানিফ আরও বলেন, কয়েকদিন আগেই নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী ঘোষণার পর তাদের প্রাক্তন মেয়র প্রার্থী তৈমুর আলম খন্দকার কোন একটি টেলিভিশন টকশোতে গিয়েছিলেন।
ওনি সেদিন বলেন, নাসিকে নির্বাচন করার মতো পরিবেশ নেই। তাই তিনি নির্বাচনে অংশ নেননি। তখন সঞ্চালক তাকে জিজ্ঞেস করলেন, আপনার দল তো নির্বাচনে অংশ নিল? তাহলে কি আপনার দল ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছে? তার জবাবে তৈমুর আলম বলেন, না; এটা ভুল সিদ্ধান্ত না। এটার একটা কৌশল আছে বলেন হানিফ। বিএনপির কিসের কৌশল? এমন প্রশ্ন উত্থাপন করে তিনি বলেন, কারণ বিএনপি জানে তাদের উপর জনগণের কোন আস্থা নেই। জনগণের ভোটে নির্বাচিত হওয়ারও তাদের সুযোগ নেই। তাই তারা নির্বাচনে অংশ নিয়েই নির্বাচন প্রক্রিয়াকে বিতর্কিত করার কৌশল নিয়েছে। ‘তাই এরা কোন কারণ ছাড়াই নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে সবসময় কথা বলে’ উল্লেখ করে হানিফ বলেন, বিএনপি এখন নাসিক নির্বাচন নিয়ে একটি অশুভ চক্রান্তে লিপ্ত আছে। এরা জনগণের ভোটের অধিকার হরণ করার জন্য সবরকম চেষ্টা করেছে। আজকে তারা ব্যর্থ হয়ে আবারও নতুন কৌশল নিয়েছে।
২০০১-০৬ মেয়াদে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের ওপর নির্যাতন-নিপীড়নের প্রসঙ্গ তুলে হানিফ বলেন, মানুষ জম্মগ্রহণ করলে মানুষের মৃত্যু হবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু সে মুত্যু অস্বাভাবিক হলে সেই মৃত্যু মেনে নেওয়া যায় না। হানিফর ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছিল ২০০৬ সালে। কিন্তু তার মৃত্যুর ঘন্টা বেজেছিল ২০০৪ সালে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার মধ্য দিয়ে।
বিএনপিকে অতীত রাজনীতির দিকে তাকানোর আহ্বান জানিয়ে হানিফ বলেন, ‘সেই দল এখন গণতন্ত্রের কথা বলে, ন্যায়ের কথা বলে। ২০০১ থেকে ২০০৬ পর্যন্ত রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় থাকতে কি ভয়াবহ ও নিষ্ঠুর ঘটনা ঘটিয়েছিলো। সেই দল যখন গণতন্ত্রের কথা বলে তাদেরকে ধিক্কার দিতে ইচ্ছে করে।
নেতাকর্মীদের প্রয়াত মেয়র মোহাম্মদ হানিফের আদর্শে শপথ নেয়ার আহ্বান জানিয়ে হানিফ বলেন, তিনি সারাজীবন দলের জন্য নিবেদিত হয়ে কাজ করে গেছেন। ওনি কখনো কাউকে অসম্মান করেছেন এমন কথা শোনা যায়নি। ছোট-বড় যেই যাক না তাকে আপন করে নিতেন এবং সম্মান দিতেন।
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য ও খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেন, নির্বাচন এখ পর্যন্ত শুরুই হয় নাই। কেবলমাত্র মনোনয়নপত্র দাখিল হয়েছে। তারপরও এ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য বিএনপির কথার মালা, অভিযোগের মালা, নালিশের মালা দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে। নির্বাচন শুরু হওয়ার আগেই তারা কাদের কথার মালা, অভিযোগের মালা, নালিশেরমালা দিয়ে নির্বাচকে বিতর্কিত করার ষড়যন্ত্র করছে।
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন, মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণের নেতা আখতার হোসেন।

Print Friendly, PDF & Email