সরকারের শেষ রক্ষা হবে না : বিএনপি

0
184
ক্রসফায়ারের নামে বিচারবহির্ভূত হত্যার মাধ্যমে দেশকে বধ্যভূমিতে পরিণত করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অবৈধ সরকারকে রক্ষা করতে পারবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমেদ।

শনিবার এক বিবৃতিতে অনির্দিষ্টকালের অবরোধ, ঘোষিত ৭২ ঘণ্টার হরতাল ও গণমিছিল সফল করার আহ্বান জানিয়ে তিনি এমন মন্তব্য করেন।
সালাহ উদ্দিন বলেন, নিপীড়ক শাসকচক্রের বিরুদ্ধে চলমান আন্দোলন সংগ্রাম কেবলই বিএনপি এবং ২০-দলীয় জোটের ক্ষমতায় যাওয়ার লড়াই নয়।
তিনি বলেন, রাষ্ট্রের মালিকানা জনগণের কাছে ফেরত দেয়ার এই আন্দোলনকে সরকার জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে সন্ত্রাসী ও জঙ্গি কর্মকা- হিসেবে উপস্থাপনের সীমাহীন অপচেষ্টা চালিয়েও ব্যর্থ হয়েছে। অবৈধ সরকার অস্ত্রের জোরে জনগণের সকল গণতান্ত্রিক ও সাংবিধানিক অধিকার কেড়ে নিয়েছে। আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধের চেতনার দোহাই দিয়ে প্রতি মুহূর্তে মুক্তিযুদ্ধের সকল অর্জনকে পদদলিত করে গণতন্ত্রকেই বিলুপ্ত করে দিতে চায়।
তিনি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর স্মরণে রাখা উচিত- তার বাবা বাকশাল গঠনের মাধ্যমে গণতন্ত্র হত্যা করে যেমন আওয়ামী লীগকে অস্তিত্বহীন করে দিয়েছিল, তেমনি তিনিও বাবার পদাঙ্ক অনুসরণ করে ফের আওয়ামী লীগকে রাজনৈতিকভাবে দাফন করার আয়োজন করে চলেছেন।
সালাহ উদ্দিন বলেন, দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে শুক্রবার মিথ্যা মামলায় বিএনপি নেতাকে ধরতে গিয়ে ছেলে রেজওয়ানুলকে হত্যা এবং স্ত্রী-কন্যাকে গুলিবিদ্ধ করে পুলিশ গ্রামবাসীর প্রতিরোধে পলায়ন করতে বাধ্য হয়।
তিনি বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে আজ দেশের সকল পাড়ায়-মহল্লায় জনগণের নেতৃত্বে স্বতঃস্ফুর্তভাবে প্রতিরোধ-সংগ্রাম কমিটি গড়ে উঠেছে। জনতার প্রতিরোধের মুখেই অবৈধ সরকারও অতি শিগগিরই পলায়নে বাধ্য হবে।
বিএনপি মুখপাত্র বলেন, রাস্তায় কয়েকটি গাড়ি চলাচল দেখে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়েছে বলে তৃপ্তির ঢেকুর তুললেও আন্দোলনে তৃণমূলের ব্যাপক অংশগ্রহণ আওয়ামী সরকারকে সমূলে উৎপাটন করতে বেশি সময়ের প্রয়োজন হবে না।
চিরিরবন্দরের জঘন্য হত্যাকা-ের তীব্র নিন্দা জানিয়ে তিনি বলেন, সময়ের পরিবর্তনে এ সকল নারকীয় হত্যাকা-ে দায়ী ব্যক্তিদের উপযুক্ত আদালতে বিচার করা হবে।
এছাড়া জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল সভাপতি জাকির হোসেন ও ছাত্রনেতা মৃণাল কান্তিকে বাসা থেকে ধরে নিয়ে বোমাবাজ সাজানোর ‘পুলিশি নাটকের’ তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান সালাহ উদ্দিন।
তিনি বলেন, ছাত্রদল ও যুবদলসহ অসংখ্য নেতাকর্মীকে গ্রেফতারের পর যে সকল পুলিশ অস্বীকার করছে, তাদের সকলের তালিকা আমরা সংরক্ষণ করছি। তাদের উদ্দেশে বলতে চাই- এই সরকারই শেষ সরকার নয়। অবৈধ সরকারের পৃষ্ঠপোষকতা করে আইনের হাত থেকে নিজেদের রক্ষা করতে পারবেন না।
বিএনপি মুখপাত্র হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি হুকুমের পর পুলিশ ও বিজিবির কতিপয় দলবাজ কর্তাব্যক্তি বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের বিভিন্ন নৃশংস কায়দায় বিচারবহির্ভূত হত্যার মাধ্যমে দেশকে বধ্যভূমিতে পরিণত করেছে। কিন্তু তারা এ অবৈধ সরকারকে রক্ষা করতে পারবে না। সর্বত্র দলবাজ পিশাচ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের তালিকা প্রণয়ণ অব্যাহত রেখেছে নেতাকর্মীরা।
ব্লগার অভিজিৎ হত্যার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, বাংলা একাডেমি ও টিএসসির মতো স্থানে নিñিদ্র পুলিশ বেষ্টনীর মধ্যেও এ হত্যা প্রমাণ করে এদেশের কোনো নাগরিকের জানমালের নিরাপত্তা দিতে সরকার ব্যর্থ।

Print Friendly, PDF & Email