সরকার গণতন্ত্রকে হত্যা করে স্বৈরাচারী আচরণ শুরু করেছে: ড. মোশাররফ

0
308

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, ডাকসুর ভিপি নুর’রা বেঁচে আছে বলেই বাংলাদেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করা সম্ভব। তিনি বলেন, বাংলাদেশে আজ গণতন্ত্র নেই, গণতন্ত্রকে গলাটিপে হত্যা করেছে এই ভোটবিহীন সরকার। এই সরকার গণতন্ত্রকে হত্যা করে স্বৈরাচারী আচরণ শুরু করেছে। দেশে কারও স্বাধীনভাবে কথা বলা, চলাফেরার অধিকার নেই। বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি, তারেক রহমানের অবৈধ সাজা বাতিল এবং ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুরের উপর পৈচাশিক হামলার প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

প্রতিবাদ সমাবেশে ডাকসুর সাবেক ভিপি ও বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, ডাকসুর সাবেক এজিএস নাজিম উদ্দিন আলমসহ বিএনপির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

খন্দকার মোশাররফ বলেন, আজ স্বাধীনভাবে কিছু বললেই গ্রেফতার, নির্যাতন, হত্যা করা হয়। এই ফ্যাসিবাদী সরকারের স্বৈরাচারী আচরণ এখন সারাদেশের সাধারণ মানুষের পাশাপাশি শিক্ষাঙ্গনেও ছড়িয়ে পড়েছে। সারাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগ, মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ দিয়ে হামলা-নির্যাতন হত্যাকাণ্ড চালাচ্ছে। তিনি বলেন, দেশের গণতন্ত্র যখন হুমকির মুখে, তখন নুর’রা আন্দোলন করছে গণতন্ত্র রক্ষার জন্য। ডাকসুর ভিপি নুরের উপর আক্রমণ করা মানে, দেশের গণতন্ত্রের ওপর আক্রমণ করা। নুর’রা বেঁচে আছে বলেই বাংলাদেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করা সম্ভব। এই ছাত্র সমাজের আন্দোলনের মধ্য দিয়েই দেশের গণতন্ত্র মুক্তি পাবে।

খালেদা জিয়ার মুক্তি প্রসঙ্গে বিএনপির অন্যতম এই নীতিনির্ধারক বলেন, এই সরকারের কাছে খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে কোন লাভ নেই। এই সরকার ক্ষমতায় থাকার জন্যই বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখেছে। সম্পূর্ণ অন্যায় ভাবে বেগম খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমানকে সাজা দেয়া হয়েছে। ছাত্র আন্দোলনের মাধ্যমেই দেশ স্বাধীন করা হয়েছিল। এই ছাত্র আন্দোলনের মাধ্যমেই বাংলাদেশের গণতন্ত্র রক্ষা, খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং এই স্বৈরাচার সরকারের পতন হবে।

Print Friendly, PDF & Email