সরকার মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে কলঙ্কিত করছে: আনু মুহাম্মদ

0
338

Anu Muhammod 01
ঢাকা: সরকার মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে কলঙ্কিত করছে বলে মন্তব্য করেছেন তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব আনু মুহাম্মদ। জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে শুক্রবার সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চ আয়োজিত ‘ত্বকী হত্যার বিচারে রাষ্ট্রের অনীহা’ শীর্ষক এক গোলটেবিল বৈঠকে তিনি এ মন্তব্য করেন।
আনু মুহাম্মদ বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনা রক্ষা করা কি শামীম ওসমানকে রক্ষা করা? যৌন সন্ত্রাসীদের রক্ষা করা? সরকার মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে কলঙ্কিত করছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন করতে হলে ত্বকী হত্যার বিচার করতে হবে।’
সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কামাল লোহানী বলেন, ‘সরকার জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে কথা বলছে, আবার তলায় তলায় জামায়াত-হেফাজতের সাথে আঁতাত করছে। না হলে যুদ্ধাপরাধীর বিচারের চিঠি পৌঁছাতে সাত দিন লাগবে কেন? এগুলোর পেছনে দূষিত রাজনীতি কাজ করছে।’
তিনি বলেন, ‘দেশে ত্বকী মঞ্চের মতো বিভিন্ন ধরণের মঞ্চ রয়েছে। এগুলো একত্রিত করে কেন্দ্রীয়ভাবে আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। আর সরকার যদি জনবিচ্ছিন্ন হয় তাহলে আমরা আন্দোলন করবো না কেন?’
কামাল লোহানী বলেন, ‘ঢাকা শহরের ট্রাফিক জ্যামের মতোই হচ্ছে এদেশের বুদ্ধিজীবীদের অবস্থা। যে যেভাবে ইচ্ছে চলছে, কোনো বাধা নেই। এরাই যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চাচ্ছে, আবার তারাই জামায়াত-হেফাজতের সঙ্গে আঁতাত করছে।’
বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির উপদেষ্টা মঞ্জুরুল আহসান খান বলেন, ‘প্রতিটি জেলাতেই নারায়াণগঞ্জের মতো মাফিয়া চক্র রয়েছে যার সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের লোকজন জড়িত। এগুলোকে বিচারের আওতায় আনতে হবে।’
ত্বকীর বাবা রফিউর রাব্বি বলেন, ‘অস্বাভাবিক মৃত্যু এখন খুব স্বাভাবিকভাবে আমাদের সামনে চলে এসেছে। এ বিষয়গুলো এখন খুব আলোড়ন সৃষ্টি করে না। এর জন্য বিচারহীনতার সংস্কৃতি দায়ী, অপরাধ সংঘটিত হওয়ার পর জড়িতদের বিচারের আওতায় না আনা। কারণ তারা সরকারের সঙ্গেই জড়িত।’
তিনি বলেন, ‘ত্বকী হত্যার তদন্ত ঠিকভাবে চললেও সংসদে শামীম ওসমানের পরিবারের দায়িত্ব প্রধানমন্ত্রী নেয়ার পর এটি উল্টে যায়। আসলে রাষ্ট্রের নগ্ন চেহারার বহিঃপ্রকাশই ত্বকী হত্যা।’
রফিউর রাব্বি বলেন, ‘মানুষের ওপর ভরসাহীন সরকার দীর্ঘদিন টিকে থাকতে পারে না। ত্বকীর হত্যার বিচার একদিন হবেই।’
প্রসঙ্গত, ২০১৩ সালের ৬ মার্চ বিকালে নিখোঁজ হন নারায়ণগঞ্জের তানভীর মুহাম্মদ ত্বকী। এর দুদিন পর শীতলক্ষ্যা নদীর কুমুদিনী খালের পাড়ে তার লাশ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় মামলা করা হলে কোনো অভিযোগপত্র দেয়নি পুলিশ।
গোলটেবিল বৈঠকে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকী প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email