সহিংসতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে ১৪ দলের আহবান

0
222

14 dol
ঢাকা: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া অবরোধ হরতাল ডেকে জনগনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন ১৪ দলের নেতারা। তারা বলেছেন জনগণকে সঙ্গে নিয়ে সহিংসতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। অবরোধ-হরতালের নামে দেশব্যাপি নাশকতা ও হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে আজ ১৪ দলের উদ্যোগে রাজধানীর ১৩টি স্পটে মানবন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। রাজধানীর বায়তুল মোকাররম দক্ষিণ গেটের পাশে মানববন্ধন কর্মসূচিতে কেন্দ্রীয় ও মহানগরের ১৪ দলের নেতারা অংশ নেন। রোববার বিকাল ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত এক ঘন্টা ব্যাপি এ কর্মসূিচ অনুষ্ঠিত হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেন, বেগম খালেদা জিয়া দানবীয়রূপে আভির্ভূত হয়ে জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন। তিনি এখন জনগণের নেত্রী নন। মানুষ হত্যার নেত্রী। তিনি বলেন, জনগণের শক্তি সবচেয়ে বড় শক্তি। এই শক্তিকে কেউ পরাজিত করতে পারেনি। জনগণকে সঙ্গে নিয়েই আমরা পরাজিত করবোই।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেন, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সন্ত্রাস নয়, নাশকতার বিরুদ্ধে নাশকতা নয়, জনগণের শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ করে বিএনপি জামায়াতের এই অপরাজনীতির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। তিনি বলেন, বর্তমান সমস্যা কোন রাজনৈতিক বা আইনশৃঙ্খলার সঙ্কট নয়। এটি বিচ্ছিন্নতাবাদের সঙ্কট। পৃথিবীর অনেক দেশেই এ ধরনের সমস্যা নিরসনে বিশেষ আইন তৈরি করে এ ধরনের সমস্যার সমাধান হয়েছে। আমাদের দেশেও তা করা যেতে পারে।

মানবন্ধনে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়–য়া, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক নুরুর রহমান সেলিম, কমিউনিষ্ট কেন্দ্রের আহবায়ক ডা. ওয়াজেদুল ইসলাম খান, তরীকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী, রেল মন্ত্রী মুজিবুল হক, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এম এ আজিজ, সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া প্রমুখ অংশ নেন।

Print Friendly, PDF & Email