সহিংসতায় সাধারণ মানুষের মৃত্যু আমাকে পীড়া দেয়: প্রধান বিচারপতি

0
226

SK Sinha
মৌলভীবাজার: প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেছেন, সাধারণ মানুষ যেভাবে মৃত্যুবরণ করছে তা আমাকে পীড়া দেয়। রিকশা চালক, বাসের চালক ও হেলপার প্রাণ হারাচ্ছে। এদের পরিবার কোথায় আশ্রয় পাবে। তাই অবরোধ ও হরতালকারীদের প্রতি তার আহবান, এসব মানুষ যাতে প্রাণ না হারায় সেলক্ষ্যে আপনারা আরও সহনশীল ও সচেতন হোন।
তিনি বলেন, আমরা খুব খারাপ সময় অতিবাহিত করছি। সাধারণ মানুষের চলাফেরা নিয়ে শঙ্কিত আছি। তাই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে আরো সজাগ থাকতে হবে যাতে সাধারণ মানুষ প্রাণ না হারায়।
বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় মৌলভীবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির বার্ষিক নৈশভোজে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।
অনুষ্ঠানে জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট রমাকান্ত দাশ গুপ্তের সভাপতিত্বে ও অ্যাডভোকেট মাসুক মিয়ার পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সমাজকল্যাণমন্ত্রী ও মৌলভীবাজার সদর আসনের সাংসদ সৈয়দ মহসীন আলী।
এছাড়া অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা ও দায়রা জজ মনির আহমদ পাটোয়ারী, চিফ জুডিশিয়েল ম্যাজিস্ট্রেট মমতাজ বেগম, জেলা প্রশাসক মো: কামরুল হাসান, পুলিশ সুপার তোফায়েল আহাম্মদ, পৌর মেয়র ফয়জুল করিম ময়ূন, জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাইয়েদ মঈন উদ্দিন জুনেল, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যডভোকেট শান্তিপদ ঘোষ, সাবেক সভাপতি অ্যডভোকেট মুজিবুর রহমান মুজিব প্রমুখ।
প্রধান বিচারপতি আরো বলেন যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত অনেক দুর্ধর্ষ আসামী কিছুদিন কারাবাসের পর বের হয়ে পুনরায় অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে। যাবজ্জীবনের অর্থই হলো, যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত ব্যাক্তির জীবনের বাকী জীবনকে কারাগারে থাকা বুঝায়। এই যাবজ্জীবনকে ভুল ব্যাখা দিয়ে অপরাধীরা কম সময়ে জেল থেকে বের হয়ে যাচ্ছে।
তিনি আরও বলেন, দেশে বর্তমানে ৩০ লাশ মামলা বিচারাধীন আছে। এই মামলাগুলো নিষ্পত্তি করতে তিনি সারা দেশের আইনজীবী সহযোগিতা চেয়েছেন।
তনি বলনে, বৃটিশ আমলে শোষন করার জন্য চালু আইনগুলো গণতান্ত্রিক দেশে উপযোগী নয়। মামলা জট এর অন্যতম একটা কারণ। তাই সরকার এই আইনগুলো পরিবর্তন করে গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের আলোকে আইন করার জন্য কাজ করছে।
প্রধান বিচারপতি এই দেশ স্বাধীন করার জন্য মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, দেশ স্বাধীন না হলে আমি প্রধান বিচারপতি হতে পারতাম না।
তিনি আরো বলেন, এতোদিন ধর্ম নিরপেক্ষতা পরিপূর্ণ ছিল না, তিনি প্রধান বিচরপতি হওয়ার পর মনে করেন দেশে পূরোপুরি ধর্ম নিরপেক্ষতা রয়েছে।
তাই তিনি যতদিন দায়িত্বে আছেন ততদিন যেনো বিচার বিভাগ ও দেশের উন্নতির জন্য কাজ করে যেতে পারেন সেই দোয়া চান।

Print Friendly, PDF & Email