সারাদেশে অনির্দিষ্টকালের অবরোধ চলছে

0
235

Oborud

নিউজ ডেস্ক: রাজধানীসহ সারাদেশে বিক্ষোভ, রাস্তা অবরোধ, অগ্নিসংযোগ, হামলা, ভাঙচুর, যুবলীগ-ছাত্রলীগ ও পুলিশের সাথে বিএনপি-ছাত্রদল ও জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার মধ্য দিয়ে চলছে ২০ দলীয় জোটের ডাকা অনির্দিষ্টকালের অবরোধ।
রাজধানীতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ও সরকার দলীয় লোকদের কঠোর নিরাপত্তায় স্বল্পসংখ্যক যানবাহন চলাচল করলেও যানবাহন সংকটে সকালে অফিসমুখী ও সন্ধ্যায় বাসামুখী মানুষের দুর্ভোগ ও ভোগান্তি চরমে। গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, মার্কেট ও শপিংমলগুলো বন্ধ রয়েছে।
এছাড়া ভয়-আতঙ্কেও সাধারণ মানুষ বাসা-বাড়ি থেকে বের হতে পারছে না। এদিকে অবরোধে আশুগঞ্জ নৌবন্দর, বেনাপোল ও আখাউড়া স্থলবন্দরের সকল কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়েছে।
শতভাগ রফতানিমুখী আখাউড়া স্থলবন্দরে কোনো প্রকার মালামাল আমদানি-রফতানি হচ্ছে না। আর সকল প্রকার লোড-আনলোড বন্ধ রয়েছে আশুগঞ্জ নৌবন্দরে। বেনাপোল স্থলবন্দরে ভারত থেকে কিছু মালামাল আসলেও অবরোধের কারণে সেগুলো ডেলিভারি দিতে পারছে না।
এদিকে দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের যাতায়াতের অন্যতম মাধ্যম নৌ চলাচলও বন্ধ রয়েছে। বরিশালসহ দেশের বিভিন্ন নৌবন্দর থেকে নৌযান ছেড়ে না যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে।
অপরদিকে অবরোধে ঢাকা কার্যত সারাদেশ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। ঢাকা থেকে দূরপাল্লার কোন যানবাহন ছেড়ে যায়নি। এমনকি সারাদেশের জেলাগুলোও একটি থেকে আরেকটি যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ার খবর পাওয়া গেছে। বন্ধ রয়েছে দূরপাল্লার বাস চলাচল।
খবর নিয়ে জানা যায়, বরিশাল থেকে দূরপাল্লার কোনো বাস চলাচল করছে না। দেশের উত্তরাঞ্চল রাজধানী থেকে একেবারে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। অচল হয়ে পড়েছে বগুড়াসহ গোটা উত্তরাঞ্চল। উত্তরাঞ্চলের প্রবেশমুখ বগুড়ার উপর দিয়ে মঙ্গলবার ভোর থেকে সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। ফলে রাজধানীর সঙ্গে এই অঞ্চলের সড়ক যোগাযোগ সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।
উল্লেখ্য, ২০ দলের ডাকা ৫ জানুয়ারি গণতন্ত্র হত্যা দিবসের সমাবেশে বাধা দিলে জোটনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া অবরুদ্ধ থাকা অবস্থায়ই সারাদেশে অনির্দিষ্টকালের অবরোধ কর্মসূচির ঘোষণা দেন।

Print Friendly, PDF & Email