সিলেট সিটি নির্বাচন; ইসলামী দলসমূহের শক্তি প্রদর্শনের সুযোগ !

0
126

শিব্বির আহমদ ওসমানী: সিলেট সিটি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সকল ইসলামী সংগঠন একজোট হয়ে শক্তি প্রদর্শনের সুযোগ তৈরি হয়েছিল। পদলোভী, ক্ষমতালোভী ও সুবিধাবাদী কিছু নেতার কারনে তা সম্ভব হলো না। সুযোগ থাকা সত্ত্বেও তারা ন্যায় ও ইনসাফের পক্ষে না দাঁড়িয়ে তাগুতকে সমর্থন করে গোলামীর জিন্জিরে আবদ্ধ হলেন। জামায়াতের শক্তি সামর্থ ও নজিরবিহীন ত্যাগের নজরানা পেশ করার পরেও যখন বিএনপি ১২টা সিটির মধ্যে অন্তত একটা সিটিতে ছাড় দিল না। আপনার কর্মীবিহীন ২ ঘন্ডা নেতার দলকে মূল্যবান করবে বলে কি ভাবে ভাবলেন।

জ্ঞানপাপী কিছু লোকের পোস্ট দেখে বড্ড হাসিা পায়। তারা বলে এ তাগুতকে তো আপনারাও ভোট দিয়েছেন। হায়রে ভাই তখন তো সুযোগ ছিল না। আমরা বড় তাগুত জালিমকে ভোট না দিয়ে তুলনামূলক ছোট তাগুতকে ভোট দেয়া হয়েছে। এখন তো সুযোগ হয়েছে ছোট ও বড় তাগুতকে বয়কট করার। কিন্তু আপনারা বয়কটের পরিবর্তে আলিঙ্গন করলেন।

এ ক্ষেত্রে ক্ষমতা ও পদের দ্বন্ধে বহু খন্ডে খন্ডিত দল দুটির কয়েকজন নেতা আগামীতে সাংসদ হওয়ার লোভে ও নিজেদের স্বার্থ হাসিলের মোহে আন্দোলন-সংগ্রামে অগ্রগামী ও সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় জুলুমের শিকার জামায়াতে ইসলামীর ইনসাফ ও ন্যায় ভিত্তিক দাবিকে উপেক্ষা করে, সিলেটের রাজনৈতিক ও সামাজিক অজ্ঞনে সততা ও যোগ্যতার প্রতিক ইসলামী আন্দোলনের আদর্শবান সিপাহসালার, মজলুম জননেতা এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়েরের টেবিল ঘড়ি মার্কাকে পাশ কাটিয়ে ধানের শীষের পক্ষে কাজ করছেন। তা সিলেট তথা বাংলাদেশের আপামর তাওহিদি জনতা ও সচেতন সমাজ কোনো ভাবেই মেনে নিতে পারছেন না।

এমনকি খন্ডিত দুই দলের ২নেতা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ২০দলের প্রার্থী নিয়ে মিথ্যাচার করছেন। রাজনৈতিক সচেতন মানুষের কঠোর প্রতিবাদে এখন তারা আর ২০দলের প্রার্থী না বলে ধানের শীষের প্রার্থী বলছেন। সকলেরই জানা আছে, সিলেটের মেয়র প্রার্থী দেয়ার বাকী ১১সিটিতে বিএনপির প্রার্থীকে সমর্থন দিয়ে শর্তে জামায়াতে ইসলামী তাদের মেয়র প্রার্থীদের মনোনয়ন প্রত্যাহার করে শুধু সিলেটে সকলের আগে ৬ মাস থেকে ব্যাপক প্রচারণা শুরু করে। তফশিল ঘোষনার পরে জোটের শরিকদের ডিঙ্গিয়ে সিলেট সিটিতে বিএনপি একক প্রার্থী ঘোষণা করায় জামায়াতে ইসলামীও শিবিরের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ও মহানগর জামায়াতের আমীর পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ, সৎ-আদর্শবান মজলুম জননেতা এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়েরকে নিয়ে মাঠে ময়দানে ঝাপিয়ে পরে টেবিল ঘড়ি মার্কার গনজোয়ার সৃষ্টি করেন। ফলে সিলেট সিটিতে ২০ দলীয় জোটের কোনো প্রার্থী না থাকায় ২/৩ দল ছাড়া জোটের অধিকাংশ নেতৃবৃন্দ জামায়াতের ক্লিন প্রার্থী এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়েরকে সমর্থন দিয়ে সরব উপস্থিতি নিশ্চিত করেছেন। সিলেট সিটির ভোটাররা ও সচেতন মহল মনে করেন সুষ্ট ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে জামায়াতের এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়ের বিপুল ভোটে বিজয়ী হবেন।

লেখক: শিক্ষাবিদ, সাংবাদিক ও উদোক্তা।

Print Friendly, PDF & Email