সীরাতুন্নবী (সাঃ) উপলক্ষে সিলেট নগর জামায়াতের আলোচনা সভা

0
991

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী সিলেট মহানগরীর নায়েবে আমীর মো: ফখরুল ইসলাম বলেছেন, আরবের বর্বর, বেদুঈন, যাযাবর, শিক্ষা ও তমুদ্দিনের আলো থেকে বঞ্চিত একটি জাতির জন্য মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) ছিলেন আল্লাহ প্রেরিত আকস্মিকভাবে জ্বলে উঠা এক আলোক মশাল। ঘোর অন্ধকারে নিমজ্জিত সভ্যতার সূর্যোদয়ের দায়িত্ব নিয়ে ৫৭০ খৃস্টাব্দের ১২ই রবিউল আওয়াল পৃথিবীতে আবির্ভূত হন সমগ্র মানবজাতির মুক্তির দূত হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)। নবীজী (সাঃ) নবুওয়াতের মাত্র ২৩টি বছরে আরবরা বিনির্মাণ করলো এক নতুন পৃথিবী। জীবনের ক্ষতস্থান থেকে যে উৎকট দুর্গন্ধ বের হচ্ছিল তা রাসুল (সাঃ) এর পরশে পরিবর্তিত হয়ে সুবাসিত আলোকবর্তিকায় পরিণত হল। তাই সামাজিক অবক্ষয় রোধ, অন্যায়-জুলুম ও অনৈতিকতার হাত থেকে বাংলাদেশকে রক্ষা করে ইনসাফপুর্ন, শান্তিময় ও সমৃদ্ধশালী করার জন্য আমাদেরকে রাসুল (সাঃ) এর আদর্শকে অনুসরণ করতে হবে।
তিনি শুক্রবার পবিত্র সীরাতুন্নবী (সাঃ) উপলক্ষে সিলেট মহানগরীর দক্ষিণ সুরমা সাংগঠনিক থানা জামায়াত আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। থানা আমীর মাওলানা মুজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারী ইঞ্জিনিয়ার শাহজাহান কবির রিপনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ আলোচনা পেশ করেন বিশিষ্ট আলেমে দ্বীন হাফিজ মাওলানা মশাহিদ আহমদ।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- মহানগর জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারী ড. নুরুল ইসলাম বাবুল ও অফিস সেক্রেটারী জাহেদর রহমান চৌধুরী । সভায় মুসলিম উম্মাহ, দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।
নেতৃবৃন্দ বলেন, যে বিস্ময়কর মহাশক্তির মাধ্যমে রাসুল (সাঃ) বিপ¬ব সাধন করেন, যা দিয়ে পাল্টে দিয়েছিলেন সমগ্র পৃথিবীকে, পাল্টে দিয়েছিলেন ঘুনে ধরা সমাজ ব্যবস্থা ও মানুষের হৃদয়কে তা হলো মহাগ্রন্থ আল কোরআন। মহানবী (সাঃ) আমাদের মাঝে নেই, তিনি আর আসবেন না। কিন্তু তিনি আমাদের জীবন বিধানের জন্য রেখে গেছেন মহাগ্রন্থ আল কোরআন। নবীজী (সাঃ) এর জীবনাদর্শ অনুসরন করে দুনিয়া, আখেরাতের কল্যাণ ও মুক্তির জন্য মহাগ্রন্থ আল কোরআনের আলোকে জীবন পরিচালনা করতে হবে।

Print Friendly, PDF & Email