২১শে আগষ্ট গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদে বিশ্বম্ভরপুরে আওয়ীলীগের জনসভা

0
253

কে.এম শহীদুল, স্টাফ রিপোটার: সুনামগঞ্জ জেলার বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার পলাশ বাজারে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামীলীগের জনসভায় তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভায় গ্রেনেড হামলাকারীদের গ্রেফতার করে ফাসির রায় দ্রুত কার্যকরের দাবিতে প্রতিবাদ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বিকেল ৫টায় বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের আয়োজনে পলাশ বাজারে এ প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
বিশ^ম্বরপুর পলাশ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল কাইয়ুম মাষ্টারের সভাপতিত্বে ও বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ’র সঞ্চালনায় সভায় প্রধান অতিথি’র বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ-মৌলভীবাজার সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট শামছুন্নাহার বেগম শাহানা রব্বানী। প্রধান বক্তা হিসাবে বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিষ্টার এম এনামুল কবির ইমন।
বিশেষ অতিথি’র জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট আপ্তাব উদ্দিন, অ্যাডভোকেট রইছ উদ্দিন, মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট আলী আমজাদ, সাবেক যুগ্ম সাধারন সম্পাদক অ্যাডভোকেট নান্টু রায়,দেওয়ান ইমদাদ রেজা চৌধুরী, সাবেক প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হায়দার চৌধুরী লিটন, জেলা কৃষকলীগের সাবেক সভাপতি সুবীর তালুকদার বাপ্টু, জেলা কৃষকলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক করুণা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল, সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোবারক হোসেন, সুনামগঞ্জ জর্জ কোর্টের পিপি অ্যাডভোকেট ডা. খায়রুল কবির রুমেন, সুনামগঞ্জ পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মলয় চক্রবর্তী রাজু, জেলা কৃষকলীগের আহব্বায়ক অ্যাডভোকেট আসাদ উল্লাহ সরকার, অ্যাডভোকেট মনীষ কান্তি দে মিন্টু, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নুরে আলম সিদ্দিকী উজ্জ্বল,এডভোকেট নাসির আফিন্দী,এ বি এম ফজলুল করিম,জেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র সদস্য রাজিব সেন,পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ইশতিয়াক আলম পিয়াল,সহ সম্পাদক নাজমুল কিরণ,সদস্য রাজু দেবনাথ,জেলা ছাত্রলীগ নেতা আলম,নাহিন,সঞ্জয়,শাহিন,মুহিন,ইউসুঢ,কাসিম .খালিদ, মুহিম উদ্দিন,সজল কুমার, দক্ষিণ বাদাঘাট ইউনিয়নের ইউপি সদস্যা প্রতিমা রানী দেবী,পলাশ ইউনিয়নের ইউপি সদস্যা আমেনা আক্তার প্রমুখ।
প্রধান বক্তার বক্তব্যে, সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিষ্টার এম এনামুল কবির ইমন বলেন, ১৯৭৫ সালে যারা বঙ্গবন্ধুকে সহ পরিবারে শিশু শেখ রাসেল সহ হত্যা করে ছিল তাদের কালো ছায়ারাই আজ ও এদেশের স্বাধীনতাকে মেনে নিতে পারেনি,২০০৪ সালের ২১ আগস্ট ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামীলীগের জনসভায় তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভায় বঙ্গবন্ধুর উত্তরসুরী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে প্রাণে হত্যার উদ্দেশ্যে স্বাধীনতা বিরোধী জামায়াত বিএনপি জোটের নেতা বেগম খালেদা জিয়া ও তার ছেলে এবং তারেক রহমান এর ইশারায় ও সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরের প্রত্যক্ষ মদদে যে গ্রেনেড হামলা চালিয়ে ছিল আল্লাহর রহমত ও দেশবাসীর দোয়ায় তিনি অলৌকিকভাবে প্রাণে বেচেঁ গেলেও এ দিন প্রয়াত সাবেক প্রেসিডেন্ট জিল্লুর রহমানের সহধর্মিনী মহিলা আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সভানেত্রী আইভি রহমানসহ ২৪ জন নেতাকর্মী প্রাণ দিয়েছিলেন এবং প্রায় ৪ শতাধিক নেতাকর্মীদের গায়ে স্প্রিন্টার লেগে আহত ও পঙ্গু অবস্থায় জীবনযাপন করছেন। তারপরে ও বিএনপি ও জামায়াতের শাসনামলে একে পর এক সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়া,আহসান উল্লাহ মাষ্টারসহ অসংখ্যা কেন্দ্রীয় নেতাকে জীবন দিতে হয়েছে। অবিলম্বে ২১শে আগষ্ট গ্রেনেড হামলা মামলার প্রধান আসামী লন্ডনে পালিয়ে থাকা বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে ইন্টারপোলের মাধ্যমে দেশে এনে এবং হামলার সাথে বাকিদের গ্রেফতার করে বাংলার মাটিতে বিচারের আওতায় এনে শাস্তির জন্য সরকারের নিকট জোর দাবী জানান।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে সুনামগঞ্জ-মৌলভীবাজার সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট শামছুন্নাহার বেগম শাহানা রব্বানী ও নেতৃবৃন্দরা আরো বলেন, স্বাধীনতার পক্ষের সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ। স্বাধীনতা বিরোধীরা আজ ও এদেশের স্বাধীনতাকে মেনে নিতে পারেনি এবং ছদ্দ বেশে আওয়ামীলীগে প্রবেশ করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে । ওরা যাতে আওয়মীলীগে ঢুকতে না পারে সে দিকে সকল স্বাধীনতার পক্ষের নেতাদের সজাগ দিষ্টি রাখার জন্য আহবান জানান।এবং ওদের মিথ্যা আশ্বাস আর ফুলঝুড়ি কথা থেকে দূরে থাকার আহবান জানিয়ে আরো বলেন আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সুনামগঞ্জ-৪ আসনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার অন্যতম কৌশুলী ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমনকে নৌকা প্রতিক দেয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট জোর দাবী জানান।
এর আগে উপজেলায় আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, সেচ্ছাসেবকলীগ, কৃষকলীগ, ছাত্রলীগ ঐক্যবদ্ধ ভাবে একটি বিক্ষোভ প্রতিবাদ মিছিল বের করে। মিছিলটি উপজেলা বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জনসভায় এসে মিলিত হয়। ##
২১.০৮.২০১৭ইং

 

Print Friendly, PDF & Email