৫ জানুয়ারি গণতন্ত্রের বিজয় দিবস পালন করবে আ.লীগ

0
271

Logo A Ligue 01
ঢাকা: বাংলাদেশে গণতন্ত্রের সর্বোৎকৃষ্ট চর্চা হচ্ছে বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ। এছাড়া দশম সংসদের একতরফা নির্বাচনের এক বছর পূর্তিতে আওয়ামী লীগ ৫ জানুয়ারি গণতন্ত্রের বিজয় দিবস পালন করবে বলেও জানান তিনি।
শুক্রবার সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সহযোগী ও অঙ্গসংগঠনগুলোর সঙ্গে যৌথসভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে হানিফ এ সব কথা বলেন।
তিনি বলেন, ‘এখন কি উৎকৃষ্ট গণতন্ত্রের চর্চা হচ্ছে না? উৎকৃষ্ট গণতন্ত্র মানে কি সংসদে বসে বিএনপির খিস্তি-খেউর শোনা? খালেদা জিয়া ও ফখরুল ইসলাম কি জনসভায় বিষোদগার করছে না। সরকারকে হুমকি দিচ্ছে না? তাদের এই সব বক্তব্যের মাধ্যমেই প্রমাণিত হয় দেশে গণতন্ত্রের সর্বোৎকৃষ্ট চর্চা হচ্ছে।’
আরেক প্রশ্নের জবাবে হানিফ বলেন, ‘সাংবিধানিক শূন্যতা থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য ৫ জানুয়ারির নির্বাচন করা হয়েছে। আমরা মনে করছি, এই নির্বাচনের মাধ্যমে গণতন্ত্র পুণরুদ্ধার হয়েছে। তাই আগামী একাদশ নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত আমরা এই দিবসকে ধারাবাহিকভাবে পালন করবো।’
৫ জানুয়ারিতে বিএনপির কর্মসূচি থাকার বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমরা সবসময় নিজ দলের কর্মসূচি নিয়ে ভাবি। অন্য কোনো দলের কর্মসূচি নিয়ে ভাবার সময় আমাদের নেই।’
আওয়ামী লীগ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বলেন, ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের আগে মানুষের মনে একটা ধারণা তৈরি হয়েছিল যে, দশম নির্বাচনের পর দেশে একটি গৃহযুদ্ধ শুরু হবে। পরে বিশ্বমন্দা থাকার পরও জননেত্রী শেখ হাসিনার পারিচালনায় দেশ স্থিতিশীল হতে শুরু করে।
তিনি দাবি করেন, দেশ এখন স্বাভাবিক। জনগনের মধ্যে আস্থা তৈরি হয়েছে। ভাবতে শুরু করেছে শেখ হাসিনার দ্বারা এদেশে কিছু একটা করা সম্ভব।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ হোসেন, শ্রম-বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, দপ্তর সম্পাদক আবদুল মান্নান খান, ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এম এ আজিজ, সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জাজল হোসেন চৌধুরী মায়া, ছাত্রলীগের সভাপতি এইচ এম বাদিউজ্জামান সোহাগ প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email