Home রাজনীতি অনলাইন জরিপে জনপ্রিয়তার শীর্ষে বদর উদ্দিন আহমদ কামরান

অনলাইন জরিপে জনপ্রিয়তার শীর্ষে বদর উদ্দিন আহমদ কামরান

742
0
 
আগামী দিনের সিলেট সিটি কর্পোরেশন মেয়র নিয়ে শুরু হয়েছে নতুন মেরুকরণ,চলছে নানান ধরনের আলোচনা।কে হচ্ছেন সিলেট সিটি কর্পোরেশন মেয়র?    একটি অনুসন্ধান চালিয়েছিল,এতে
দলীয় নেতাকর্মী সহ সাধারণ রিকশা ড্রাইবার,হকার,সিএনজি ড্রাইবার, ব্যবসায়ী,সাধারণ মানুষ সহ সিলেট সিটি কর্পোরেশন এলাকায় এক জরিপ করেছিল আমাদের প্রতিনিধি দল,এই জরিপে মোট ৫৭৬ জনকে জিজ্ঞাসা করে ৭৫ ভাগ ভোট বদর উদ্দিন আহমেদ কামরানের পক্ষ্যে পাওয়া যায়,বাকি ২৫ ভাগ ভোট ভাগ পেয়েছেন সম্ভাবনাময় ব্যক্তিরা
সিলেটে প্রাণহীন বিএনপি। অন্যদিকে অধিক জনপ্রিয়তা শঙ্কায় ফেলে দিয়েছে আওয়ামী লীগের রাজনীতিকে। জাতীয় পার্টি ধুঁকছে অস্তিত্ব সংকটে। নতুন নতুন মুখের আর্বিভাব ঘটছে এ দলে। তবে- আশার কথা রাজনৈতিক মাঠে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি নেই। রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা বিরাজ থাকার পরও সিলেটে শক্তি বাড়াতে পারেনি বিএনপি। আন্দোলনের ময়দানে রাখতে পারেনি উল্লেখযোগ্য ভূমিকা। সর্বশেষ গেলো কর্মসূচিতেও সফল হয়নি তারা তবে সিলেট আওয়ামীলীগে মেয়র প্রার্থী নিয়ে খুব একটা মতপার্থক্য নেই বললেও চলে আওয়ামীলীগের বিরট একটা অংশ মেয়র পদে সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি বদর উদ্দিন আহমেদ কামরানকে মেয়র পদে দেখতে চান বলে মত প্রকাশ করেছেন।
তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মাঝে মধ্যে সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আসাদকে মেয়র পদে দেখতে চান বলে দাবী করেন আসাদ উদ্দিনের অনুগ্রাহীরা। তবে জনপ্রিয়তার দিক দিয়ে মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি, সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান উল্লেখিত সকল প্রার্থী থেকে এখনও সবার শীর্ষে রয়েছেন,নগরিতে রয়েছে তার বড় একটা ভোট ব্যংক। তাঁর ব্যক্তিগত আচরণ, বিপদে আপদে মানুষকে সহায়তা করা, মানুষের পাশে দাঁড়ানো, এই সব বৈশিষ্টের কারণে  দল-মত নির্বিশেষে নগরবাসীর প্রিয় মানুষ তিনি। এ ক্ষেত্রে অবশ্য আওয়ামীলীগের দলীয় সিদ্ধান্তই নেতাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। তবে পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নগরবাসীর কাছে প্রশ্ন-
আগামীতে  নগর পিতা হিসাবে কাকে দেখতে চান এই প্রশ্নের জবাব পেতে  একটি অনুসন্ধান চালিয়েছিল,এতে দলীয় নেতাকর্মী সহ সাধারণ রিকশা ড্রাইবার,হকার,সিএনজি ড্রাইবার, ব্যবসায়ী,সাধারণ মানুষ সহ সিলেট সিটি কর্পোরেশন এলাকায় এক জরিপ করেছিল আমাদের প্রতিনিধি দল,এই জরিপে মোট ৪৭৬ জনকে জিজ্ঞাসা করে ৭৫ ভাগ ভোট বদর উদ্দিন আহমেদ কামরানের পক্ষ্যে পাওয়া যায়,বাকি ২৫ ভাগ ভোট বদর উদ্দিন আহমেদ কামরানকে চান না বলে জানিয়েছেন।তবে কাকে চান এই প্রশ্নের উত্তর বেশিরভাগ লোক দিতে পারেনি,কুদরত উল্লাহ মার্কেটের এক ব্যবসায়ীকে জিজ্ঞাসা করা হয় আগামী মেয়র হিসাবে কাকে দেখতে চান তিনি বলেন, কাকে চাই বলতে পারবোনা তবে দল থেকে যাকে দেয়া হবে তাকেই চাইব।
লাল বাজারের এক মৎস ব্যবসায়ীকে এই প্রশ্ন করা হলে তিনি সিলেটি ভাষায় বলেন আমরা রে বাবা এখনও কামরান সাব রে মেয়র মনো করি, কোন বিপদো পড়িয়া তান গেছে গেলে তাইন খালি আতে ফিরাইয়া দেইন না (আমরা এখনো কামরান সাহেব কে মেয়র মনে করি,কোন বিপদে পড়ে উনার কাছে গেলে তিনি খালি হাতে ফিরিয়ে দেননা) নাম বলতে অনিচ্ছুক দু’জন পুলিশ কর্মকর্তা বলেন কামরান স্যারকেই আবার মেয়র হিসাবে দেখতে চাই,উনার ব্যবহার খুব ভালো,উনি সবাইকে মূল্যায়ন করেন।
এ পর্যন্ত বিএনপি থেকে ৩টি নাম আলোচনায় উঠে এসেছে। তারা হলেন সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন, মহানগর বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক ডা. শাহরীয়ার হোসেন চৌধুরী, সিলেট সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র (১) রেজাউল  হাসান কয়েস লোদী।বিএনপি সমর্থিত কিছু সংখক লোকদের কাছ থেকে আরেকটি নাম উঠে এসেছে তিনি হলেন সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও সিলেট জেলা ফুটবল এসোসিয়েশন ডিএফএ’র প্রেসিডেন্ট মাহি উদ্দিন আহমদ সেলিম।তবে সব জল্পনাকল্পনার অবসান ঘটিয়ে কে হচ্ছেন আগামী দিনের সিসিক মেয়র এটাই এখন সবার মনে প্রশ্ন।আর এই উত্তর পেতে হলে আমাদের আরো কিছুদিন অপেক্ষাই করতে হবে।
Previous articleপানি ব্যবস্থাপনায় অভিজ্ঞতা বিনিময়ের ওপর প্রধানমন্ত্রীর গুরুত্বারোপ
Next article৫৭০ মিলিয়ন ডলার সহায়তা দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক