আমরা আত্মতুষ্টিতে ভুগছি না: মুশফিকুর

0
219

ঢাকা: বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম বলেছেন, তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ২-০ ব্যবধানে নিশ্চিত হলেও আত্মতুষ্টিতে ভুগছে না বাংলাদেশ। আগামীকাল বুধবার জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে তৃতীয় ও শেষ টেস্ট শুরু হবে। আজ ম্যাচ-পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে থাকার কারণে অধিনায়ক হিসেবে একটু ভাল অনুভুতি হওয়াটা স্বাভাবিক। এমন অনুভুতি খুব একটা পাওয়া যায় না। শেষ কবে হয়ছিল, তা-ও মনে নেই। এটা অবশ্যই একটা ভাল অনুভূতি। তবে বাস্তবতা হচ্ছে আগের ২টি ম্যাচ আমরা যেভাবে জয় পেয়েছি তার চেয়ে কঠিন হবে তৃতীয় টেস্ট ম্যাচটি। অন্তত জয় পাওয়াটা কঠিন হবে। তবে আমাদের আত্মবিশ্বাস আছে আমরা ভাল খেললে এই টেস্টও আমরা জয় লাভ করতে পারব। জিম্বাবুয়ে দল ৩ সপ্তাহ ধরে আমাদের এখানে আছে আমাদের বোলিং,কন্ডিশন সম্পর্কে তারা অবগত আছে। আশা করছি উইকেটের সহায়তা পেলে এই টেস্টটাও জিততে পারব।
তিনি বলেন, এই বছর আমরা যে কয়টা ম্যাচ হেরেছি সেদিক থেকে এখন আমাদের নিজেদের প্রমাণ করার অনেক কিছু আছে। যেহেতু অন্য দেশের মত আমরা টেস্ট খুব বেশি খেলি না । প্রত্যেকটা টেস্টই আমাদের জন্য অন্য রকম কিছু একটা প্রমাণ করার চিন্তা থাকে। সেদিক থেকে বলব খেলোয়াড়রা সবাই মানসিক এবং শারীরিকভাবে প্রস্তুত। আর আমরা অবশ্যই চেষ্টা করব আমাদের সামর্থ অনুযায়ি সিরিজকে ৩-০ করতে। আর এরকম সুযোগ সব সময় আসে না। আমরা চাইবো যে ওয়ানডের আগে আমাদের জয়ের যে ধারাবাহিকতা সেটা ধওে রাখতে। সেই সঙ্গে খেলোয়াড়দের ফর্ম ধওে রাখতে।
অলরাউন্ডার সাকিব প্রসঙ্গে টাইগার দলপতি বলেন, সাকিব খুব ভাল ফর্মে আছে। আশা করি এই ফর্ম তিনি ধরে রাখতে পারবেন। শুধু তিনি না শেষ টেস্টে যারা ফর্মে ছিল তাদের উচিত হবে সেটি ধরে রাখা। আর যারা ফর্মে নেই সুযোগ পেলে চেষ্টা করতে হবে পারফর্মম্যান্স করার। আমার মনে হয় এটাই একটা ভাল দলের লক্ষণ। অন্তত যারা পারফর্মার আছে তারা তাদের পারফর্মম্যান্সের ধারাবাহিকতা বজায় রাখবে। আর যারা সুযোগ পাবে তারা ধারাবাহিকতা বজায় রাখবে। দলে যত বেশি পারফর্মার থাকবে তত বেশি দলের জন্য ভালো হবে।
বাংলাদেশের হয়ে সর্বাধিক টেস্ট ম্যাচে নেতৃত্ব দেয়ার মাধ্যমে ব্যক্তিগত অর্জন প্রসঙ্গে মুশফিকুর রহিম বলেন, এজন্য অবশ্যই ভাল লাগছে। সুমন (ভাইয়ের) রেকর্ডটা টপকিয়ে আমি অধিনায়ক হিসেবে বেশি টেস্ট ম্যাচ খেলার মধ্যে আছি। অবশ্যই এটা ভাল অনুভূতি। আশা করি এই টেস্ট ম্যাচটা আমরা জয় করে দলের জন্য কিছু একটা অর্জন এন দিতে পারব। সে জন্য আমি মানষিক এবং শারীরিকভাবে প্রস্তুত। আশা করছি আল্লাহ সহায় হলে সবকিছুই ঠিক হবে।
আসন্ন বিশ্ব কাপ সামনে রেখে টেস্টের চেয়ে ভিন্ন ফর্মেশনের খেলার প্রতি গুরুত্বারোপ করা উচিত মন্তব্য করে বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেন, বিশ্বকাপের আগে অন্য কন্ডিশনে খেলা আমাদের জন্য আরো ভালো হতো। তার চেয়েও বড় ব্যাপার হল দল হিসেবে পারফর্ম করা এবং যে কোন ওয়ানডে, টেস্ট বা টোয়েন্টি২০ যেটাই খেলেন না কেন সেটা জয় লাভ করাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যত বেশি ম্যাচ জিতবেন দল হিসেবে এটা ভাল হবে। দলও এতে আরো বেশি অনুপ্রণীত হবে। তখন আত্মবিশ্বাসটা বেড়ে যায়। সেদিক থেকে বলব আমরা শেষ দুইটা ম্যাচ জিতেছি এটা আমাদের অনুপ্রাণীত করবে। আশা করছি এটা কাজে লাগবে। এই সিরিজের পর অনেক সময় থাকবে বিশ্বকাপের জন্য প্রস্তুতি নেয়ার। যেহেতু দল আগেই বিশ্বকাপ খেলতে যাবে, তাই আগে গিয়ে প্রস্তুতির জন্য বেশ কিছু সময় পাবে। সেদিক থেকে বলব এই সিরিজটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ আমাদের জন্য। র্যা ঙ্কিংয়েরও একটা ব্যাপার ছিল। আমাদের লক্ষ্যও সেদিকে। তারপর ওয়ানডে আছে। আমার মনে হয় ওয়ানডে অনেক প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে।

Print Friendly, PDF & Email