এখনো ৫ জানুয়ারির একজন ভোটার খুঁজে পাইনি: ড. কামাল

0
238

Dr. Kamal 03
ঢাকা: সংবিধান বিশেষজ্ঞ ও সিনিয়র আইনজীবী ড. কামাল হোসেন বলেছেন, বিগত ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে ভোট দিয়েছে এমন কাউকে আমি আজ পর্যন্ত খুঁজে পাইনি, এটা আমার দুর্ভাগ্য। সংবিধান দিবস উপলক্ষে বুধবার এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবনে গণতান্ত্রিক আইনজীবী সমিতি ‘৭২-এর সংবিধান ও বিচার বিভাগের স্বাধীনতা’ শীর্ষক এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।
ড. কামাল বলেন, ভোটারবিহীন নির্বাচন ১৯৮৬ সালে প্রথম শুরু হয়েছে। শাসক দল দাবি করতে পারে যে, ভোটারবিহীন নির্বাচন ঠিক আছে। কিন্তু এটা গণতন্ত্র নয়।
তিনি বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে একজন প্রতিনিধি নির্বাচিত হবেন এবং তারা সরকার গঠন করবেন, এটাই গণতন্ত্র। সুষ্ঠু নির্বাচন ছাড়া জনগণের প্রতিনিধি নির্বাচিত হতে পারে না।
এই সংবিধান প্রণেতা বলেন, ‘যার যার ধর্ম তার তার। আওয়ামী লীগ গঠনের সময় আমরা আওয়ামী-মুসলিম লীগ থেকে মুসলিম কেটে দিয়েছি বলে কি আমরা অমুসলিম হয়ে গেছি? তা নয়। যে যার ধর্ম পালন করবে, এটা নিয়ে রাজনীতি হবে না।’
তিনি বলেন, ‘বাহাত্তরের সংবিধান দেখিয়ে তিনি বলেন, আমি এই দলিলকে শ্রদ্ধা করি। এর ১২ নম্বও অনুচ্ছদে বলা আছে, কোনো ধর্মকেই রাষ্ট্রীয় ধর্ম করা যাবে না। তবে জাতীয়তাবাদ নিয়ে কোনো বিতর্কের অবকাশ নেই। কারণ, এই জাতীয়তাবাদেও ভিত্তিতেই দেশ স্বাধীন হয়েছে।’
প্রধান বিচারপতির পদ প্রসঙ্গে ড. কামাল বলেন, প্রধান বিচারপতিসহ সকল বিচারপতি শপথ অনুযায়ী বিবেক দিয়ে দায়িত্ব পালন করবেন। তিনি পক্ষপাতিত্বভাবে কিছু করলে একটি স্তম্ভ ধসে যাবে।
গণতান্ত্রিক আইনজীবী সমিতির সভাপতি সুব্রত চৌধুরী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ বিচার বিভাগের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে না। তাই তারা মাসদার হোসেন মামলায় হাইকোর্টের রায়কে আপিল বিভাগে চ্যালেঞ্জ করেছিলেন।
তিনি বলেন, পুরো দেশের বিচার ব্যবস্থা এখন পণ্যে পরিণত হয়েছে। সততা, যোগ্যতা, মেধার ভিত্তিতে না করে দলীয়করণে বিচারক নিয়োগ দেয়া হচ্ছে। ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে বিচার বিভাগের স্বাধীনতার বিকল্প নাই।
সংগঠনের সুপ্রিমকোর্ট শাখার সভাপতি অ্যাডভোকেট একেএম জগলুল হায়দার আফ্রিকের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আবু ইয়াহিয়া দুলাল প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

Print Friendly, PDF & Email