কে এই জুনায়েদ? কেন এই দম্ভোক্তি?

0
212

নিজস্ব প্রতিনিধি: ‘আমি জুনায়েদ, জুনায়েদ। কোনো মন্ত্রী-মিনিস্টার আমার কিছু করতে পারবে না।’ এই বলে এক কিশোর লাফিয়ে লাফিয়ে লাথি মারছে আরেক কিশোরকে। ফেসবুক আর ইউটিউবের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া বেধড়ক মারধরের ১০ মিনিটের এই ভিডিওটি নিয়ে চলছে তুমুল আলোচনা-সমালোচনা। সবার প্রশ্ন, কে এই জুনায়েদ?
প্রকাশ্যে মারধরের এই ভিডিওটি শনিবার ফেসবুকে আপলোড করেছেন জুনায়েদ আল ইমরান নামের ওই কিশোর নিজেই। ধানমণ্ডি লেক এলাকায় ধারণ করা ভিডিওটি আপলোড করে জুনায়েদ লিখেছেন, ‘এ ছেলেটি ম্যাপল লিফ ও অক্সফোর্ড ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের মেয়েদের নিয়ে আজেবাজে মন্তব্য করেছে। আমার বিশেষ একজন মানুষকে নিয়েও আপত্তিকর মন্তব্য করেছে। মারটা বেশি হয়ে গেছে মনে হয়। ভিডিওটা ছড়িয়ে দিন।’
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জুনায়েদের বাসা রাজধানীর গেন্ডারিয়ায়া। সাদিয়া নামের এক বান্ধবীকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্যের অভিযোগ তুলে নুরুল্লাহ নামের আরেক কিশোরকে বেধরক পিটুনি দেয় সে। তবে প্রথম থেকেই এ অভিযোগ অস্বীকার করে আসছিল নুরুল্লাহ। নুরুল্লাহ বারবার বিষয়টি ভুল বোঝাবোঝি হিসেবে উল্লেখ করলেও জুনায়েদ তা মানতে চায়নি।
বেধড়ক পিটুনি আর দম্ভোক্তির ভিডিওটি আপলোডের প্রায় সাত ঘণ্টা পর জুনায়েদ ফেসবুক থেকে সরিয়ে নেয়। এর পরপরই ঘটনাটি নিয়ে নিজের ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন নুরুল্লাহ। সেখানে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন তিনি। ভিডিওটি এরই মধ্যে ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়ে গেছে। ভিডিওটি নিয়ে তীব্র ক্ষোভ জানিয়েছেন বহু ফেসবুক ব্যবহারকারী। তারা অনেকেই জুনায়েদের গ্রেফতার দাবি করেন।
এরই মধ্যে জুনায়েদের বিরুদ্ধে দাঁড়ানো নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকে একটি ইভেন্ট খোলা হয়েছে যেখানে জুনায়েদকে কীভাবে শায়েস্তা করা যায় তার পরিকল্পনাও শুরু হয়েছে। এই পাল্টাপাল্টি অবস্থানে বারবারই তাদের কমন বন্ধু মেয়েটির নামও আসছে।
এই ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার পরে আরেকটি ভিডিও আপলোড করা হয়েছে। যেখানে জুনায়েদ বলছে, সে রাগের মাথায় ভুল করে ফেলেছে এবং তার বাড়ি গেণ্ডারিয়া এলাকায়। অডিওর আরেকপ্রান্তের ব্যক্তির পরিচয় না পাওয়া গেলেও তিনি ধানমণ্ডি এলাকার সেটা জানা যায়। তিনি জুনায়েদকে ক্ষমা চেয়ে (অ্যাপোলজি) ভিডিও আপ করতে বলেন। এরপর সোমবার একটি ‘অ্যাপোলজি’ ভিডিও আপ করা হয়, যেখানে জুনায়েদ শিকার করে, এভাবে মারা ঠিক হয় নাই। তবে সেই ছেলেটি জুনায়েদের সঙ্গে যে কাজ করেছে সেটাও ঠিক করে নাই।
সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ভিডিওর বিরুদ্ধে মন্তব্য করেছেন। কেউ কেউ উল্লেখ করেছেন, জুনায়েদ নামের এই বখাটে কিশোরটি মাদকাসক্ত। রাজধানীর পাড়া-মহল্লায় এধরনের বখাটেদের মাস্তানি করতে দেখা যায়। বিষয়টিকে অমানবিক, সামাজিক মূল্যবোধের অবক্ষয় আর অপরাধ হিসেবেও উল্লেখ করেছেন অনেকে।
এ বিষয়ে ধানমণ্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূরে আজমের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি জানান, আক্রমণকারী জুনায়েদ নামের ওই বখাটেকে শনাক্ত করা হয়েছে। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Print Friendly, PDF & Email