জগন্নাথপুর পৌরসভা নির্বাচনে ৩৩ কাউন্সিলর প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ

0
257

 

জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি: আসন্ন জগন্নাথপুর পৌরসভা নির্বাচনে পুরুষ কাউন্সিলর পদে দাখিল করা ৩৪ প্রার্থীর মধ্যে ৩৩ প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ বলে ঘোষণা করা হয়েছে। এর মধ্যে ঋণখেলাপী এক ব্যাংক গ্রাহকের জিম্মাদার থাকায় এক কাউন্সিলর প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। তবে আগামী ৩ দিনের মধ্যে আপীল করলে আবারো তিনি নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন  বলে সংশি­ষ্ট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন।

জানা গেছে, রোববার জগন্নাথপুর পৌরসভা নির্বাচনে পুরুষ কাউন্সিলর পদে ৩৪ প্রার্থীর দাখিল করা মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের শেষ দিনে অন্যের ঋণখেলাপীর কারণে এক প্রার্থী ছাড়া বাকি ৩৩ প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ বলে ঘোষণা দিয়েছে নির্বাচন অফিস।

এবারের পৌরসভা নির্বাচনে পুরুষ কাউন্সিলর পদে ১ নং ওয়ার্ডের বর্তমান পৌর কাউন্সিলর খলিলুর রহমান, আব্দুল ওয়াহাব ও শাহিনুর রহমান, ২ নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর মামুন আহমদ ও নিজামুল করিম, ৩ নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর তাজিবুর রহমান, আফরোজ আলী, লিটন মিয়া ও লেবু মিয়া, ৪ নং ওয়ােের্ডর বর্তমান কাউন্সিলর সুহেল আমিন, কামাল হোসেন, দিলোয়ার হোসেন ও হেলাল আহমদ, ৫ নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর শফিকুল হক ও আব্দুল কাইয়ূম, ৬ নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর গিয়াস উদ্দিন মুন্না, সাবেক পৌর কাউন্সিলর আবু সুফিয়ান ঝুনু, সাংবাদিক গোবিন্দ দেব ও অ্যাডভোকেট আমিরুল হক এনাম, ৭ নং ওয়ার্ডের ব্যবসায়ী খলিলুর রহমান, সুহেল আহমদ ও জাকির হোসেন, ৮ নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর আবাব মিয়া, আকমল হোসেন,  সাফরোজ ইসলাম ও শামীম আহমদ, ৯ নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর মঈন উদ্দিন, র“পন মিয়া, দ্বীপক কাšি— গোপ, আবুল বাহার চৌধুরী, হাফিজুর রহমান, নুর“ল ইসলাম, আনহার মিয়া ও ছমির উদ্দিনসহ মোট ৩৪ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এর মধ্যে অন্যের ঋণখেলাপীর কারণে ৭ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী খলিলুর রহমানের মনোনয়ন বাতিল করা হয়। এ ব্যাপারে খলিলুর রহমান জানান, আমি কোন ঋণখেলাপী নই। অন্যের জিম্মাদার হওয়ায় এখন বেকায়দায় পড়েছি। তবে আমি আপীল করেছি। ব্যাংক এশিয়া জগন্নাথপুর শাখার ব্যবস্থাপক তারেক কিবরিয়া জানান, খলিলুর রহমান ঋণখেলাপী গ্রাহক নন। তবে নেছার উদ্দিন নামের এক ঋণখেলাপী গ্রাহকের জিম্মাদার ছিলেন। জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা গোলাম সারোয়ার জানান, ঋণখেলাপীর জিম্মাদার হলেও সমান অপরাধী। জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ হুমায়ূন কবির জানান, আগামী ৩ দিনের মধ্যে আপীল করলে বৈধতার বিষয়টি পুনরায় বিবেচনা করা হবে।

প্রসঙ্গত গত শনিবার মেয়র পদে আওয়ামীলীগ মনোনীত সাবেক পৌর মেয়র আলহাজ্ব আব্দুল মনাফ, বিএনপি মনোনীত যুক্তরাজ্য প্রবাসী রাজু আহমদ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে যুক্তরাজ্য প্রবাসী আলহাজ্ব শাহ নুরুল করিম, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১, ২, ৩ নং ওয়ার্ডের বর্তমান নারী কাউন্সিলর আয়ার“ন্নেছা ও সুফিয়া খানম, ৪, ৫, ৬ নং ওয়ার্ডের বর্তমান নারী কাউন্সিলর বাহারজান বিবি, সাবেক নারী কাউন্সিলর মিনা রাণী পাল, ফারজানা বেগম, ডলি বেগম ও রাবিয়া বেগম, ৭, ৮, ৯ নং ওয়ার্ডের বর্তমান নারী কাউন্সিলর সুবর্ণা রাণী শর্মা, খালেদা বেগম ও নার্গিস ইয়াসমিনসহ ৩ মেয়র ও ১০ নারী কাউন্সিলর প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ বলে ঘোষণা করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email