জানুয়ারি থেকে ডিজিটাল নম্বরপ্লেট বাধ্যতামূলক: সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী

0
247

ঢাকা: নতুন বছর থেকে ডিজিটাল নম্বরপ্লেট এবং আরএফআইডি ট্যাগ ছাড়া সারাদেশে কোথাও যানবাহন চলাচল করতে পারবে না বলে জানিয়েছেন  সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সেইসঙ্গে, অতিরিক্ত ভাড়া রোধে মালিক-চালকের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিআরটিএর প্রতি নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। বুধবার সকালে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে সেতু মন্ত্রণালয়ের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তিস্বাক্ষর অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘আমি রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেছি। তাতে জানতে পেরেছি প্রায় ৪০ শতাংশ বাস-মিনিবাস অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে।’ যাত্রীদের স্বার্থকে অগ্রাধিকার দিয়ে সরকার নির্ধারিত ভাড়া আদায় এবং অতিরিক্ত ভাড়া আদায় না করার জন্য মন্ত্রী পরিবহন মালিকদের প্রতি আন্তরিক আহ্বান জানান।

মন্ত্রী বার্ষিক কর্মসম্পাদন অনুষ্ঠানে উপস্থিত সবার অবগতির জন্য বলেন, ‘বিআরটিএ’র মোবাইল কোর্টগুলো প্রতিনিয়ত কাজ করছে। মোবাইল কোর্টের অভিযান অব্যাহত থাকবে।’

বিআরটিএ কর্মকর্তাদের উদ্দেশে সেতু মন্ত্রী বলেন, ‘বিআরটিএ যেসব যানবাহনের রেজিস্ট্রেশন প্রদান করেছে ওইসব যানবাহনকে আগামী ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে ডিজিটাল নাম্বারপ্লেট ও আরএফআইডি ট্যাগ সংগ্রহ করতে হবে।’

আগামী ১ জানুয়ারি থেকে ডিজিটাল এ নাম্বার প্লেট এবং আরএফআইডি ট্যাগ ছাড়া সারাদেশে কোথাও যানবাহন চলাচল করতে পারবে না। এ বিষয়ে দ্রুত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে বলে মন্ত্রী জানান।

মন্ত্রী বলেন, ‘বিআরটিসি বাসে অতিরিক্ত ১০ টাকা ভাড়া আদায়ের অভিযোগে বিআরটিসি’র চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানের কাছে জানতে চেয়েছি কেন অতিরিক্ত ভাড়া নেয়া হচ্ছে। সরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা যদি আইন না মানে, তাহলে কেমনে বেসরকারি বাস মালিকরা আইন মানবে। আগে আমাদের আইন মানতে হবে। পরে অপরকে আইন মানতে বাধ্য করতে হবে।’

সেতু মন্ত্রী বলেন, ‘আমি গত ১২ অক্টোবর বিকেলে বিআরটিসি বাসে উঠে ঢাকা-মুন্সীগঞ্জ ও ঢাকা-মাওয়া রুটের বিভিন্ন বাস স্ট্যান্ডে নেমেছি এবং বিভিন্ন বিআরটিসি’র চালক ও যাত্রীদের সঙ্গে অতিরিক্ত ভাড়ার বিষয়ে জানতে চাইলে যাত্রীরা অতিরিক্ত ১০টাকা ভাড়া নেয়ার অভিযোগ জানায়।’

গত ১ অক্টোবর থেকে বাসের ভাড়া বৃদ্ধি কার্যকর হওয়ার পর থেকে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা-মুন্সিগঞ্জ ও ঢাকা-মাওয়া সড়কে বিআরটিসি বাসে অতিরিক্ত ১০ টাকা ভাড়া নেয়ার হচ্ছে।

কর্মসম্পাদন অনুষ্ঠানে সড়ক পরিবহন ও সেতু সচিব এমএএন সিদ্দিক, সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর, বিআরটিএ, বিআরটিসিসহ সংশ্লিস্ট সংস্থাগুলোর প্রধানরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email