তাহিরপুরে উৎকোচ না দেয়ায় মৃত এক মুক্তিযোদ্ধা স্ত্রীর বেতন ভাতা বন্ধ

0
194

নাইম-তালুকদার, দঃসুনামগঞ্জ: সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট (উত্তর) ইউনিয়নের মুকশেদপুর গ্রামের মৃত মুক্তিযোদ্ধা আশিক নুর এর স্ত্রী তারা বানু স্বাধীনতার পর থেকে পাচঁ হাজার টাকা করে মুক্তিযোদ্ধা বেতন ভাতা পেলেও গত মার্চ(২০১৫) থেকে উপজেলা সমাজসেবা অফিসের এক কর্মচারীকে উত্কোচ না দেয়ায় এবং এক অদৃশ্য শক্তির ইশারায় ভাতা বন্ধ থাকায় মানবেতর জীবনযাপন করছেন ঐ মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের সদস্যরা৷ তারা বানুর সাথে আলাপকালে তিনি অভিযোগ করেন তাহিরপুর উপজেলা সমাজসেবা অফিসের কর্মচারী মোঃ শাহ আলম চলতি বছরের এপ্রিল মাসে জোরপূর্বক তার নিকট হতে মুক্তিযোদ্ধা ভাতা বই নিয়ে যান৷ ফলে ঐ পরিবার কয়েকবার উপজেলা সমাজসেবা অফিসারের স্মরণাপন্ন হলেও আজো কোন কার্যকরী পদক্ষেপ না নেওয়ায় ঐ পরিবারটি বর্তমানে অনাহারে অর্ধাহারে জীবনযাপন করছেন৷ যে মুক্তিযোদ্ধা ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহবানে দেশ মাতৃকার টানে জীবন বাজি রেখে অস্ত্র হাতে তুলে নিয়ে পাকিস্থানীদের বিরম্নদ্ধে যুদ্ধ করেছিলেন৷ আজ মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সরকার ক্ষমতাসীন থাকলে ও কি কারণে সমাজসেবা অফিসের একজন কর্মচারী শাহ আলম ঐ মুক্তিযোদ্ধা স্ত্রীর মুক্তিযোদ্ধা বই জোরপূর্বক নিয়ে যান৷ কে সেই শাহ আলম তার কুঠির জোর কোথায় সে সবসময় মুক্তিযোদ্ধা ভাতা নেওয়ার সময় আসলে অসহায় মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের নিকট হতে উৎকোচ নিয়ে ভাতা দিচ্ছেন৷

এছাড়াও ঐ অফিস কর্মচারী শাহ আলমের রয়েছে নানান অপকর্ম ও দুর্নীতি৷ এ ব্যাপারে তাহিরপুর উপজেলা সমাজসেবা অফিস কর্মচারী মোঃ শাহ আলমের সাঘে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন,মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী তারা বানু অন্যত্র দ্বিতীয় আরেকটি বিয়ে হওয়ায় তার ভাতা বই রাখা হয়েছে৷ এ ব্যপারে তাহিরপুর উপজেলা সমাজসেবা অফিসার মোঃ ইসমাইল হোসেন বলেন,মুক্তিযোদ্ধার পরিবার হতে অভিযোগ আসলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান৷

Print Friendly, PDF & Email