Home ফিচার ধর্ষণের শিকার হওয়ার পর নারীদের করণীয়

ধর্ষণের শিকার হওয়ার পর নারীদের করণীয়

603
0
ফাইল ছবি

অনলাইন ডেস্ক: ধর্ষণ নারীদের কাছে এক আতঙ্কের নাম। প্রতিদিন পত্রিকার পাতা খুললেই মেলে ধর্ষণের খবর। অহরহ ঘটছে ধর্ষণের ঘটনা। শুধু ধর্ষণেই শেষ নয়, নৃশংসভাবে হত্যাও করা হচ্ছে। সম্প্রতি আফ্রিকায় শতাধিক নারীকে অপহরণ পর ধর্ষণ করা হয়েছে।

স্বাভাবিকভাবেই ধর্ষণের মতো দুঃস্বপ্ন কোনো মেয়েই দেখতে চান না। ধর্ষণের পর যে কোনো নারী এতটাই লজ্জিত এবং আতঙ্কিত থাকেন, যে তিনি ধর্ষক সম্পর্কে কোনো কথা বলতে বা পুলিশের কাছে গিয়ে সে অভিজ্ঞতা বা ধর্ষক সম্পর্কে জানাতে ভয় পান, কুণ্ঠা বোধ করেন। আবার অনেকেই আত্নহত্যাও করে থাকেন। এছাড়া পরিবারের সদস্যসহ আত্মীয়-স্বজন, বন্ধুবান্ধবের কাছ থেকে দূরত্ব বজায় রেখে চলেন। কিন্তু একজন ধর্ষণের শিকার নারীর মানসিক বিপর্যয় ঠেকাতে পরিবার ও কাছের স্বজনদের যত্নশীল হওয়া প্রয়োজন। তাই এ সম্পর্কে সচেতন থাকা জরুরি। ধর্ষণের পরে একজন নারীর কী করা প্রয়োজন সে সম্পর্কে আসুন জেনে নেই—

১. ধর্ষণের পর একা থাকবেন না, কোনো বান্ধবী বা আত্মীয়ের সাথে যোগায়োগ করুন, ঘটে যাওয়া ধর্ষণ নিয়ে কথা বলুন এবং তার সাহায্য নিন।

২. গোসল, খাওয়া-দাওয়া, ধূমপান, বাথরুম যাওয়া – সম্ভব হলে এ সব বন্ধ রেখে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ডাক্তারের কাছে চলে যান। অর্থাৎ ধর্ষণের চিহ্ন মুছে যাবার আগেই ডাক্তারি পরীক্ষা করান।

৩. হাসপাতালে যাওয়ার পর যদি ‘এমারজেন্সিতে’ কারো সঙ্গে এ বিষয়ে কিছু বলতে না চান, তাহলে শুধু বলুন ‘আমাকে এক্ষুণি একজন স্ত্রী বিশেষজ্ঞের সঙ্গে কথা বলতে হবে’ – এ কথা বললেও চলবে।

৪. ধর্ষণকারী যেসব জিনিসের সংস্পর্শে এসেছে, তার সব তুলে রাখুন। যেমন অন্তর্বাস, প্যাড ইত্যাদি। সম্ভব হলে এ সব জিনিসের ছবিও তুলে রাখুন।

৫. নিজেকে দোষী ভাববেন না। কারণ যে ধর্ষণের মতো জঘন্যতম কাজটি করেছে, শুধু সে একাই এর জন্য দায়ী, অপরাধী। আপনি নন।

Previous articleঅংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের প্রধান শর্ত
Next articleমাধ্যমিক-উচ্চ মাধ্যমিকে শিক্ষক হতে পিএসসি পরীক্ষা দিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী