নির্বাচনে কালো টাকা-পেশীশক্তি রোধে সহায়তা চান সিইসি

0
274

Rokib Udiin Ahmedঢাকা: সিটি করপোরেশন নির্বাচনে কালো টাকা ও পেশীশক্তি বন্ধে প্রার্থীদের সহযোগিতা চেয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিব উদ্দীন আহমেদ। তিনি বলেছেন, ‘নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে কোনো রকম ছাড় দেওয়া হবে না।’
সোমবার রাজধানীর খামারবাড়ি কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র ও কাউন্সিলির প্রার্থীদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন সিইসি।
তিনি বলেন, ‘ঢাকা ও চট্টগ্রামের তিন সিটি করপোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে সম্পন্ন করতে সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। সুষ্ঠুন নির্বাচনের জন্য কাউকে কোনো ধরনের ছাড় দেয়া হবে না।’
কাজী রকিব উদ্দীন বলেন, ‘আমরা চাই নির্বাচনে কালো টাকা ও পেশীশক্তির অপসংস্কৃতি বন্ধ হোক। এজন্য কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আপনাদেরও কমিশনকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করতে হবে।’
প্রার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আপনাদের কোনো সুনির্দিষ্ট অভিযোগ থাকলে তা রিটার্নিং কর্মকর্তাকে লিখিত দেবেন। যাতে আমরা তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে পারি।’
হলফনামায় মিথ্যা তথ্য দানকারীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘কেউ হলফনামায় মিথ্যা তথ্য দিলে রক্ষা নেই। নির্বাচনের আগে ও পরে তাদের বিরুদ্ধে অ্যাকশন নেওয়া হবে।’
মতবিনিময়ের শুরুতে মেয়র প্রার্থীরা তাদের বক্তব্য তুলে ধরেন। এই সিটির বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী মির্জা আব্বাস উপস্থিত ছিলেন না। তার প্রতিনিধি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্ত্রী আফরোজা আব্বাস।
তিনি ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী সাঈদ খোকনের লোকজনের বিরুদ্ধে তার লোকজনের নির্বাচনী প্রচারণার কাজে বাধা দেয়া, প্রশাসনের বিশেষ সুবিধা নেওয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগ তুলে ধরেন।
জবাবে সাঈদ খোকন এসব অভিযোগ অস্বীকার বলেন, আমার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী অভিযোগের খাতিরে এসব বলছেন। উনি পারলে এমন একটি ঘটনার প্রমাণ দিন।
এছাড়া মতবিনিময়ে অন্য মেয়র প্রার্থী ও অংশ নেওয়া কাউন্সিলর প্রার্থীরা তাদের মতামত তুলে ধরেন। তারাও ঢাকা উত্তরের প্রার্থীদের মত সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবি জানান।
সকাল ১১টায় ফার্মগেট কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট অডিটোরিয়ামে এই মতবিনিময় শুরু হয়। এতে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিব উদ্দীন আহমেদ ছাড়াও চার নির্বাচন কমিশনার, প্রার্থী, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য ও ইসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
ঢাকা দক্ষিণে মেয়রপদে ২০ জন, কাউন্সিলর পদে ৩৮৫ ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৯৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। আগামী ২৮ এপ্রিল এ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ হবে।

Print Friendly, PDF & Email