নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থীর কারণে সহিংসতা ঘটেছে: সংসদে আইনমন্ত্রী

0
234

ঢাকা: সংসদ কার্যে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ইউপি সাধারণ নির্বাচনে প্রথম থেকে ষষ্ঠ পর্যায়ে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে অসহিষ্ণুতা ও একই দলে বিদ্রোহী প্রার্থী থাকার কারণে কোথাও কোথাও বিচ্ছিন্নভাবে কিছু সহিংসতার ঘটানা ঘটেছে। ৪ হাজার ১০৪টি ইউনিয়নে অত্যন্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণভাবে ইউনিয়ন পরিষদ সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে দাবি করেন মন্ত্রী। সংসদে প্রশ্নোত্তরে আজ সোমবার মো: রুস্তম আলী ফরাজীর (পিরোজপুর-৩) এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী সংসদে একথা বলেন। সকালে ডেপুুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়ার সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠকের শুরুতে প্রশ্নোত্তর টেবিলে উপস্থাপিত হয়।

আইনমন্ত্রী বলেন, এবারের নির্বাচনে প্রতিটি উপজেলায় নির্বাচনী সিডিউল ঘোষণার পর হতেই একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আচরণবিধি প্রতিপালনের বিষয়ে নিয়মিত মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় দায়িত্ব পালন করেন। প্রতিটি উপজেলায় ভোটগ্রহনের দিনের পূর্বের দুই দিন ও ভোটগ্রহণের দিন এবং ভোটগ্রহণের পরের দিন অর্থাৎ মোট চার দিন আরো অতিরিক্ত তিন জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ১জন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা ও আচরণ বিধি প্রতিপালনের লক্ষ্যে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন।

এছাড়া প্রতিটি সাধারণ কেন্দ্রে ২০ জন এবং গুরৃত্বপূর্ণ কেন্দ্রে ২১ জন সশস্ত্র ও লাঠিধারী আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মোতায়েন করা হয়। ৩য় ধাপের নির্বাচনের পূর্বে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রধানদের সঙ্গে ২য় দফায় আরো একটি সভা করে তাদের অধিকতর সতর্কতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের নির্দেশনা দেয়া হয়। প্রধান নির্বাচন কমিশনার, নির্বাচন কমিশনারগণ ও কমিশন সচিবালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রেখেছেন এবং ইলেকট্রনিক মিডিয়ার প্রচারিত সংবাদের ভিত্তিতে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে আইনমন্ত্রী জানান। তিনি আরো বলেন, নির্বাচনে যাতে মহিলা ও সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠি নির্বিঘে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন এবং নির্বাচনে পরবর্তী সময়ে তাদের নিরাপত্তার বিষয়ে বিশেষ নজর রাখেন।

Print Friendly, PDF & Email