নৈরাজ্যে জড়িত দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন: জামায়াত

0
208

Logo Jamat 01

ঢাকা: হত্যা, সন্ত্রাস, বোমা বর্ষণ ও নৈরাজ্যের ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত করে অপকর্মের সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছে জামায়াতে ইসলামী। দলের ভারপ্রাপ্ত আমীর মকবুল আহমাদ বুধবার এক বিবৃতিতে বলেন, সারাদেশে হত্যা, সন্ত্রাস ও নৈরাজ্যের সাথে সরাসরি সরকার জড়িত। সুতরাং এ সরকারের দ্বারা কোন নিরপেক্ষ তদন্ত এবং প্রকৃত দোষীদের শনাক্ত করে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ সম্ভব নয়। এ অবস্থায় জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে নিরপেক্ষ তদন্ত কমিশন গঠন করে চলমান সন্ত্রাস, হত্যা ও নৈরাজ্যের সাথে সম্পৃক্তদের শনাক্ত করে তাদের ব্যাপারে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানাচ্ছি। এ ধরনের কমিশনকে জামায়াত সর্ব প্রকার সহযোগিতা দিবে বলেও জানান তিনি।
মকবুল আহমাদ বলেন, মানুষের জান-মালের ক্ষতি করার রাজনীতিতে জামায়াত বিশ্বাস করে না। জামায়াত এই ধরনের কর্মকান্ডকে প্রশ্রয় দেয় না। অতীতে যাত্রীবাহী বাসে গানপাউড়ার দিয়ে আগুন লাগিয়ে মানুষ হত্যা, বোমা নিক্ষেপ ও লগি-বৈঠার তান্ডব চালিয়ে মানুষ হত্যা, মৃত লাশের উপর দাঁড়িয়ে উল্লাস প্রকাশ এবং পুলিশ খুনের অপরাজনীতি আওয়ামী লীগই করেছে। দেশবাসীর কাছে অত্যন্ত স্পষ্ট, এখনো তারাই অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে এসব নৃশংস ঘটনা ঘটাচ্ছে। এসব অপকর্মের মাধ্যমে তারা জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবির এবং ২০ দলের নেতা-কর্মীদের হত্যা, গ্রেফতার ও অত্যাচারের পথ প্রশস্ত করছে। তিনি আরো বলেন, সরকার সাংবিধানিক অধিকার মিছিল, সমাবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। কোথাও মিছিল বের হলেই আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে গুলি চালাতে বাধ্য করা হচ্ছে। ফলে নিরুপায় হয়ে ২০ দলীয় জোট ৬ জানুয়ারী থেকে দেশব্যাপী শান্তিপূর্ণ অবরোধ কর্মসূচী ঘোষণা করতে বাধ্য হয়েছে। সরকার এই আন্দোলনকে নস্যাৎ করার জন্য পুলিশ প্রহরায় গাড়ী চালানোর ঘোষণা দিয়েছে। পুলিশের নিরাপত্তা বেষ্টনির মধ্যে যানবাহনে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে দুষ্কৃতকারীরা নারী, শিশু ও নিরীহ যাত্রীদেরকে নির্মমভাবে হত্যা করছে। পুলিশ প্রহরায় যানবাহনে এসব হামলাকারীদেরকে গ্রেফতার না করে তার দায় বিরোধী দলের উপর চাপানো রহস্যজনক ও রাজনৈতিক ফায়দা হাসিল করার অপচেষ্টা।
জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমির বলেন, সরকার রাষ্ট্রীয় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দ্বারা সরাসরি মানুষের বুকে গুলি চালাচ্ছে। ঘর থেকে ধরে নিয়ে মানুষ হত্যা করে তা ‘ক্রস ফায়ারে নিহত হয়েছে’ বলে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। তিনি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর উদ্দেশ্যে বলেন, জনগণের নিরাপত্তা, শান্তি-শৃঙ্খলা ও দেশ থেকে অপরাধ নির্মূল করা আপনাদের পেশাগত দায়িত্ব। বর্তমান সংকট কোন ফৌজদারী অপরাধের সাথে সম্পৃক্ত নয়। এটা রাজনৈতিক সংকট। সুতরাং আপনারা আপনাদের পেশাদারিত্ব বজায় রেখে নিরপেক্ষভাবে দায়িত্ব পালন করুন। জনগণের বুকে গুলি চালানো বন্ধ করুন। কোন দলের স্বার্থ রক্ষা আপনাদের দায়িত্ব নয়। আপনারা দেশের স্বার্থে কাজ করুন। বিজ্ঞপ্তি

Print Friendly, PDF & Email