নৌবাহিনীকে ত্রিমাত্রিক বাহিনীতে পরিণত করা হবে: প্রধানমন্ত্রী

0
243
ফাইল ছবি

চট্টগ্রাম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশ নৌবাহিনীকে আধুনিক ও ত্রিমাত্রিক বাহিনীতে পরিণত করে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করা হবে। এ লক্ষ্যে পটুয়াখালীর রাবনাবাদ এলাকায় এভিয়েশনসংবলিত দেশের সর্ববৃহৎ নৌঘাঁটি নির্মাণকাজ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় বুধবার সকালে বাংলাদেশ নেভাল একাডেমিতে শীতকালীন রাষ্ট্রপতির কুচকাওয়াজে বক্তৃতাকালে এ সব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, শক্তিশালী নৌবাহিনী প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে আগামী বছরের মাঝামাঝি সময়ে সাবমেরিন যুক্ত হবে। যুক্তরাষ্ট্রের দেওয়া প্রত্যয় ও স্বাধীন নামে দুটি জাহাজ আগামী মাস থেকে নৌবহরে যুক্ত হবে।

সরকারের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের মানুষের গড় আয়ু বেড়েছে, দারিদ্র্যসীমা নিচে নেমে এসেছে। আগামী ২০ সালের আগেই দেশ একটি উচ্চ-মধ্য আয়ের দেশে পরিণত হবে। অনেক ক্ষেত্রে আমরা ভারত-পাকিস্তানকেও ছাড়িয়ে গেছি। আমাদের সরকার যখনই ক্ষমতায় এসেছে তখন দেশের উন্নয়ন হয়েছে। আগামীতেও হবে।

পরে প্রধানমন্ত্রী চিটাগং ড্রাই ডককে আনুষ্ঠানিকভাবে নৌবাহিনীর কাছে হস্তান্তর করেন। এর আগে বেলা ১১টায় প্রধানমন্ত্রী পতেঙ্গার নেভাল একাডেমিতে পৌঁছলে নৌপ্রধান ভাইস অ্যাডমিরাল এম. ফরিদ হাবিব, চট্টগ্রাম নৌ অঞ্চল রিয়ার অ্যাডমিরাল মোহাম্মদ আখতার হাবীব তাকে স্বাগত জানান।

নৌবাহিনীর শীতকালীন এ কুচকাওয়াজে নৌবাহিনীর ডাইরেক্টর এন্ট্রি অফিসার ২০১৫/বি ব্যাচের ২৪ জন ও মিডশিপম্যান ২০১৪/এ ব্যাচের ৫৩ জনসহ মোট ৭৭ জন কর্মকর্তা কমিশন লাভ করেন। এদের মধ্যে একজন শ্রীলঙ্কান মিডশিপম্যান রয়েছেন।

ডাইরেক্টর এন্ট্রি অফিসার এ্যাক্টিং সাব-লেফটেন্যান্ট এম রেহানুরজামান শ্রেষ্ঠ ফলাফল অর্জনকারী হিসেবে ‘শহীদ মোয়াজ্জেম’ পদক লাভ করেন। অন্যদিকে, মিডলশিপম্যান ফাহিম উদ্দিন সাকিব সেরা চৌকস মিডলশিপম্যান হওয়ার গৌরব অর্জন করে ‘সোর্ড অব অনার’ লাভ করেন।

এ ছাড়াও পেশাগত ও শিক্ষাগত বিষয়ে সর্বোচ্চ মান অর্জনকারী হিসেবে মিডশিপম্যান জাহিদ মোহসীন কবির ‘বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ রুহুল আমিন স্বর্ণপদক’ এবং মিডশিপম্যান এম রিয়াজুল ইসলাম ‘নৌপ্রধান স্বর্ণপদক’ লাভ করেন।

এ কুচকাওয়াজে সংসদ সদস্য, সেনা ও বিমানবাহিনীর প্রধানগণ, নৌ সদর দফতরের পিএসও, সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর আঞ্চলিক কমান্ডারগণ, মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী নৌ কমান্ডোসহ দেশি-বিদেশি কূটনীতিক এবং শিক্ষা সমাপনী ব্যাচের মিডশিপম্যানদের অভিভাবকগণ উপস্থিত ছিলেন।

পরে প্রধানমন্ত্রী চিটাগাং ড্রাই ডক হস্তান্তর অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছলে নৌবাহিনীর একটি সুসজ্জিত দল তাকে গার্ড অব অনার প্রদান করে। তিনি গার্ড পরিদর্শন এবং সালাম গ্রহণ করেন। এর পর তিনি চিটাগাং ড্রাই ডকের মহাপরিচালকের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে ফরমান হস্তান্তর করেন এবং হস্তান্তরিত ড্রাই ডকের নামফলক উন্মোচন করেন।

Print Friendly, PDF & Email