বাংলাদেশের উন্নয়নে বিশ্বব্যাংক সহায়তা অব্যাহত রাখবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

0
247

Tufayel 02
স্টাফ রিপোর্টার: বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশের ব্যবসা-বাণিজ্য এবং উন্নয়নে সহায়তা অব্যাহত রাখবে। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নে বিশ্বব্যাংক সন্তুষ্ট। এসব ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সাথে আরো কাজ করতে বিশ্বব্যাংক সার্বিক সহায়তা দিয়ে যাবে। সোমবার বাংলাদেশ সচিবালয়ে বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেকটর জোহান্স ঝুটের সাথে মতবিনিময় শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।
বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বিশ্বব্যাংক মনে করে তৈরি পোশাক খাতে বাংলাদেশ বহুদূর এগিয়ে যাবে। এ ক্ষেত্রে আরো বেশি সহায়তা প্রদান করতে বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশের সঙ্গে থাকবে। বাংলাদেশের রপ্তানি পণ্যের বহুমুখীকরণের সুযোগ আছে। বিশেষ করে ওষুধ, পাট ও পাটজাত পণ্য, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য এবং আইসিটি খানে রপ্তানি বৃদ্ধির প্রচুর সম্ভাবনা ও সুযোগ রয়েছে। বিশ্বব্যাংক এসব খাতে রপ্তানির সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য সহযোগিতা দিতে আগ্রহী উল্লেখ করে তিনি বলেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় বিশ্বব্যাংকের সহায়তায় দেশের বাণিজ্য ক্ষেত্রে উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। আগামী দিনগুলোতে এ সহযোগিতা আরো বৃদ্ধি করার আগ্রহ প্রকাশ করেছে বিশ্বব্যাংক।
তোফায়েল আহমেদ বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতি এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশ স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে শুধু তৈরি পোশাক ৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রপ্তানি করার পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। ডাব্লিউটিওর সিদ্ধান্ত মোতাবেক অনেক উন্নতদেশ এলডিসিভুক্ত দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে শুল্ক ও কোটামুক্ত সুবিধা দিচ্ছে দিলেও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশকে সে সুবিধা দিচ্ছে না। মন্ত্রী বলেন, ইউএস এইড এবং ইউকে এইড এর আর্থিক সহযোগিতায় ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল সম্প্রতি একটি জরিপ পরিচালনা করে। এতে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পের একটি পরিষ্কার চিত্র উঠে এসেছে। এতে বলা হয়েছে, ইপিজেডের শ্রমিকরা ন্যূনতম ১০ হাজার এবং অন্যান্য কারখানার শ্রমিকরা ন্যূনতম সাত হাজার ৩৪১ টাকা মজুরি পাচ্ছে।
শ্রমিকরা কর্মবান্ধব পরিবেশে কারখানাগুলোতে কাজ করার সুযোগ পাচ্ছে। প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের শ্রমিকগণ তাদের মধ্যহতে শ্রমিক নেতা নির্বাচন করতে আগ্রহী। বহিরাগত কোন শ্রমিক নেতা তাদের পছন্দ নয়। বাংলাদেশকে পৃথিবীর মধ্যে দ্বিতীয় বৃহত্তম পোশাক রপ্তানি কারক দেশ উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, বিশ্ববাজারে প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে।

Print Friendly, PDF & Email