মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস প্রচারে অনলাইন গণমাধ্যম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে

0
168

সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার মো: মশিউর রহমান এনডিসি বলেছেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস প্রচারে এবং তরুণ প্রজন্মের কাছে পৌছে দিতে অনলাইন গণমাধ্যম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।
তিনি বলেন দেশের প্রায় ৭০ ভাগ মানুষ একাত্তরের পরে জন্ম। তারা শুধু ইতিহাস বিকৃতি দেখেছে। তাই মুক্তিযুদ্ধ এবং বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে যত বেশি আলোচনা অনুষ্ঠান হবে ততই মঙ্গল।
শুক্রবার (২৬ মার্চ) সন্ধ্যায় ‘বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী’ উপলক্ষে সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাব আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
বিভাগীয় কমিশনার আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ছিলো স্বাধীনতা আন্দোলনের মূলমন্ত্র। এটা ছিলো সংগ্রামের প্রেরণা এবং দিক নির্দেশনা।
তিনি বলেন, সাংবাদিকরা সমাজের দর্পণ, ডিজিটাল বাংলাদেশে অনলাইন গণমাধ্যম অত্যন্ত জনপ্রিয়। সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাব ডিজিটাল বাংলাদেশ বির্নিমানে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখছে। ইতোমধ্যে এই প্রেসক্লাব প্রশাসন এবং গণমানুষের আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।
ক্লাবের সভাপতি ও প্রতিষ্ঠাতা মুহিত চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং উদযাপন উপকমিটির আহ্বায়ক ও ক্লাবের সহ সভাপতি গোলজার আহমদ হেলালের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, সাধারণ সম্পাদক মকসুদ আহমদ মকসুদ। আরো বক্তব্য রাখেন ক্লাবের সহ সাধারণ সম্পাদক মো: তাওহীদুল ইসলাম। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন ক্লাব সদস্য লোকমান হাফিজ।
সভাপতির বক্তব্যে মুহিত চৌধুরী বলেন, কিছু সংখ্যক রাজাকার আলবদর ছাড়া দেশের সকল মানুষ বঙ্গবন্ধুর ডাকে স্বাধীনতা যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়ে। তিনি বলেন, সারা বাংলাদেশে সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাব একটি ব্র্যান্ড। আমরা মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে হৃদয়ে ধারণ করে এগিয়ে যাবো। স্বার্থন্বেষী মহলের কোন অপপ্রচার আমাদের অগ্রযাত্রায় কোন বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারবেনা।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, ক্লাবের ক্রীড়া ও সংস্কৃতি সম্পাদক জহিরুল ইসলাম মিশু,কার্যকরী পরিষদ সদস্য আশিষ দে ও সাইফুল ইসলাম।
ক্লাব সদস্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, আফরোজ খান, ফাহানা বেগম হেনা, শহিদুর রহমান জুয়েল, কামাল আহমদ, এম এ ওয়াহীদ চৌধুরী, দেবব্রত রায় দীপন, আবু জাবের, মোশারফ হোসেন সুজাত, হেনা মমো, জসিম উদ্দিন, আলমগীর আলম প্রমূখ।

Print Friendly, PDF & Email