সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনীর রিট অপরিপক্ব: সুরঞ্জিত

0
555

ঢাকা: আওয়ামী লীগের উপদষ্টো পরিষদের সদস্য এবং জাতীয় সংসদ, আইন ও বিচার বিষয়ক সংসদীয় কমিটির সভাপতি সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেছেন, সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনীর উপর উচ্চ আদালতে যে রিট করা হয়েছে তা অপরিপক্ব। এ রিট অসময়ে করা হয়েছে। ষোড়শ সংশোধনী তো এখনো কার্যকর হয় নাই। তাহলে এ বিষয়ে রিট হয় কিভাবে? সুরঞ্জিত বুধবার দুপুরে রাজধানীর ইনস্টিটিশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (আইডিইবি) মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন। প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা আখতারুজ্জামান বাবুর স্মরণ সভা ও চলমান রাজনীতি শীর্ষক আলোচনাটি বঙ্গবন্ধু একাডেমি আয়োজন করে।
আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সুরঞ্জিত বলেন, ষোড়শ সংশোধনীতে কোন নতুন বিষয় আনা হয় নাই। শুধু ৭২ সালের গণপরিষদে যে বিধান ছিল সেটি ফিরে আনা হয়েছে। সুতরাং এটি নিয়ে রিট করার কোন প্রয়োজন ছিল না। এ সংশোধনীর মাধ্যমে সুপ্রীম কোর্টকে আরো সমৃদ্ধশালী ও শক্তিশালী করা হয়েছে। আলোচনায় মানবতাবিরোধী অপরাধী কামারুজ্জামানের ফাঁসির রায় কার্যকর করা নিয়ে বাদী, বিবাদী এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে বিভিন্ন বক্তব্যের সমালোচনা করেন সুরঞ্জিত। তিনি বলেন, রায় কার্যকর নিয়ে বাদী-বিবাদী পক্ষের আইনজীবীদের আদালতের বাইরে যে বাহাস এটির কোন প্রয়োজন নাই। রিভিউ হবে কি হবে না এটি আদালতই স্থির করবে, এ বিষয়ে সদ্ধিান্ত দেবে। এটি নিয়ে তাত্ত্বিক কোন ব্যাখার প্রয়োজন নাই। শুধু শুধু বিভ্রান্তি সৃষ্টি করা হচ্ছে।
রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার প্রসঙ্গে সুরঞ্জিত বলেন, প্রাণভিক্ষা চাইতে গেলে তো অতীত কৃতকর্মের জন্য জাতির কাছে ক্ষমা চেয়ে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করতে হবে। কিন্তু তারা তাদের অতীত কৃতকর্মের জন্য কখনই জাতির কাছে ক্ষমা চায়নি। তারা এখনও মুক্তিযুদ্ধ, জাতীয় পতাকা এবং স্বাধীনতার ইতিহাসকে মেনে নিতে পারে নাই। আলোচনায় সভাপতিত্ব করেন আয়োজক সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন। বক্তব্য রাখেন, বঙ্গবন্ধু একাডেমীর মহাসচিব হুমায়ূন কবির মিজী, সাম্যবাদী দলের নেতা হারুন চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হাই কানু প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email