সন্ত্রাসী হামলায় আহত ছাত্রলীগ কর্মী শাহীনকে ঢাকায় প্রেরণ

0
224

সিলেট: নগরীর সোবহানীঘাটের সন্ত্রাসী হামলায় গুরুতর আহত ছাত্রলীগ কর্মী শাহীনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। সোমবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে তার পরিবারের সদস্যরা অ্যাম্বুলেন্সযোগে ঢাকার পিজি হাসপাতালের উদ্দেশে রওয়ানা হয়েছেন বলে দলীয় সূত্র জানিয়েছে।

শাহীনের শরীরের ৮০ ভাগ অংশ ক্ষতিগ্রস্ত (ডেমেজ) হয়ে গেছে। এদিকে, এ ঘটনা আহত আরেক ছাত্রলীগ কর্মী আবুল কালাম আসিফকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

সোমবার বেলা ১টার দিকে ২ টি মোটর সাইকেলে এসে হেলমেট পরিহিত চার যুবক ছাত্রলীগের ওই দুই কর্মীর ওপর প্রকাশ্যে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হামলা চালায়। তারা কুপিয়ে শাহীনের শরীর থেকে তার ডান হাত বিচ্ছিন্ন করে ফেলে। এছাড়া, তার বাম হাতের একাধিক স্থান ও দুই পায়ের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। এছাড়া, ছাত্রলীগ কর্মী আশিকের ডান পায়ের গোড়ালিসহ হাত ও পায়ের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয়েছে।

সিলেটে ছাত্রলীগের ২ কর্মীকে কুপিয়ে জখমের অভিযোগ অস্বীকার করেছে ছাত্রশিবির। সোমবার বিকেলে গণমাধ্যমে বিবৃতি পাঠিয়ে মহানগর ছাত্রশিবিরের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ ও সেক্রেটারি নজরুল ইসলাম এ অভিযোগ অস্বীকার করেন।

এর আগে সোমবার দুপুরে সোবহানীঘাট এলাকায় ছাত্রলীগের ২ কর্মীকে কুপিয়ে জখম করে সন্ত্রাসীরা। হামলায় তাদের একজনের হাত শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়েছে। অপরজনের হাতের কব্জিতে জখম হয়েছে।

ছাত্রলীগ এই হামলার জন্য শিবিরকে দায়ী করেছে। তবে শিবির এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে। ছাত্রশিবির বলছে, ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ দ্বন্ধের জেরে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে।

শিবিরের বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, বিগত কয়েকদিন ধরে ওই এলাকার কতিপয় কলেজ ছাত্রদের মধ্যে সিনিয়র-জুনিয়র নিয়ে দ্বন্ধ চলে আসছিল। তারা সবাই ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। এর জের ধরেই কয়েকদিন আগেও দু’গ্রæপের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এতে ছাত্রলীগ কর্মী নাবিল আহমদসহ কয়েকজন আহতের ঘটনা ঘটে। মূলত পূর্বের হামলার বদলা নিতেই এই হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার সাথে শিবিরের কোনও নেতাকর্মীর সংশ্লিষ্টতা নেই বলে দাবি করেন তারা।

Print Friendly, PDF & Email