সুন্দরবনে নাংলী ক্যাম্পের আবদুল্লাহর টিলা এলাকায় আবার আগুন

0
516

নিউজ ডেস্ক: পূর্ব সুন্দরবনের ধানসাগর স্টেশনের নাংলী ক্যাম্পের আবদুল্লাহর টিলা এলাকায় আবার আগুন লেগেছে। সোমবার সকাল ৯টার দিকে আগুন লাগে। বন বিভাগ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মী এবং স্থানীয় লোকজন আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চলছে। এ নিয়ে পাঁচ দিনের ব্যবধানে একই স্থানে আগুন লাগার ঘটনা ঘটল।

বন বিভাগ বলছে, আগুন এমনিতেই লাগেনি, দুর্বৃত্তরা লাগিয়েছে। এর আগেও গত ১৩ এপ্রিল এবং ২৭ মার্চ একই এলাকায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। গত ১৩ এপ্রিলের আগুন লাগার বিষয়টি পরিকল্পিত ছিল বলেই ৬ জনকে অভিযুক্ত করে গতকাল রোববার আদালতে বন আইনে মামলা করে বন বিভাগ। বন বিভাগ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে, যাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে তারা ও তাদের সহযোগীরা ক্ষিপ্ত হয়ে পুনরায় এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে।

পূর্ব সুন্দরবনের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা সাইদুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, আজ সকাল ৯টার দিকে নাংলী ক্যাম্পের আবদুল্লাহ টিলা এলাকায় আগুন লাগার ঘটনার কথা আমরা জানতে পারি। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ইতিমধ্যে ঘটনাস্থলে বিপুলসংখ্যক বন প্রহরী ও ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় লোকজন কাজ করছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চলছে।
সাইদুল ইসলাম বলেন, প্রাথমিকভাবে আমরা ধারণা করছি, ১৩ এপ্রিলের অগ্নিকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে রোববার যাদের অভিযুক্ত করে আদালতে মামলা করা হয়েছে, তারা ও তাদের সহযোগীরা ক্ষিপ্ত হয়েই আবার এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে। আগুন লাগার প্রকৃত কারণ ও ঘটনা উদঘাটনে তদন্তে কমিটি গঠনসহ অবস্থা বুঝে সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

গত ১৩ এপ্রিল ও ২৭ মার্চ একই এলাকায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ১৩ এপ্রিল অগ্নিকাণ্ডে প্রায় সাড়ে আট একর বনভূমি পুড়ে যায়। বনজ সম্পদ ও পরিবেশের ক্ষতি হয় প্রায় ৭ লক্ষাধিক টাকার মতো।
এর আগে ২০১৪ সালের ২২ মে পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের ধানসাগর স্টেশনের ঘুলিসাখালী ক্যাম্পসংলগ্ন বাইশের চিলা ও পঁয়ষট্টি চিলার মাঝামাঝি বনের প্রায় এক একর এলাকাজুড়ে থাকা বলা্বাগানে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। তিন দিন চেষ্টা চালানোর পর বনের আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছিল।

এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, ২০০০ সালে পূর্ব সুন্দরবন বিভাগ গঠনের পর থেকে এই এলাকায় অন্তত ২০টি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এতে ৬০ একরেরও বেশি বনাঞ্চল পুড়ে যায়। তবে বেসরকারি হিসাবে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার পরিমাণ আরও অনেক বেশি। এর মধ্যে শুধু চাঁদপাই রেঞ্জের ধানসাগর স্টেশন এলাকায় অন্তত ১৪টি আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে।

Print Friendly, PDF & Email