Home জাতীয় স্থানীয় নির্বাচনে লেভেল প্লেইং ফিল্ড চায় বিএনপি

স্থানীয় নির্বাচনে লেভেল প্লেইং ফিল্ড চায় বিএনপি

288
0

ঢাকা: সম্প্রতি দুইজন বিদেশি হত্যার পর বুধবার ফের দিনাজপুরে এক ইতালীয় নাগরিককে হত্যা চেষ্টায় উদ্বেগ ও উৎকন্ঠা প্রকাশ করেছে বিএনপি। এ নিয়ে কোনো প্রকার কোনো প্রকার কালক্ষেপণ ও দোষারোপের রাজনীতি না করে প্রকৃত সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে বাস্তবমুখী উদ্যোগ গ্রহনের দাবি জানান দলটির মুখপাত্রের দায়িত্বে থাকা আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন। একই সাথে তিনি অভিযোগ করেন, দলীয় প্রতীকে স্থানীয় নির্বাচনের যে সিদ্ধান্ত হয়েছে তাতে বৈষম্য রয়েছে।

সকালে নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরো বলেন, সরকার স্থানীয় সরকার নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এক ধরনের অস্থিরতায় ভুগছে। বারবার নানা ধরনের পরিবর্তন এনে স্থানীয় সরকার ব্যবস্থা নিজেদের অনুকূলে নেয়ার অপচেষ্টায় প্রস্তাবিত আইনটি জগাখিচুরীতে পরিণত হয়েছে। তারা একদিকে স্থানীয় সরকারে পৌরসভায় মেয়র ও ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীকে ও মনোনয়নের বিধান রেখে বাকি কাউন্সিলর ও মেম্বার পদে অরাজনৈতিকভাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতার সুযোগ রেখে একটি কিম্ভুতকিমাকার ব্যবস্থার সৃষ্টি করেছে যা পৃথিবীর কোন দেশে নজীর নেই।
তিনি আরো বলেন, ‘বিস্ময়ের ব্যাপার হলো, কোন আইন সংশোধন কিংবা প্রণয়নে অথবা যেকোন নীতিগত সিদ্ধান্ত মন্ত্রীসভায় উত্থাপিত হওয়ার প্রক্রিয়ায়-মন্ত্রীদের যে হোম ওয়ার্ক থাকা প্রয়োজন, বর্তমান বিনাভোটে নির্বাচিত সরকারের মন্ত্রীদের মধ্যে তার অভাব প্রকটভাবে দেখা যাচ্ছে। মন্ত্রীসভায় স্থানীয় সরকার নির্বাচন দলীয় মনোয়নে ও দলীয় প্রতীকে হওয়ায় সিদ্ধান্ত তারা নিলেও-হাজার হাজার প্রার্থীকে মনোনয়ন দেয়ার ব্যাপারে বাছাই প্রক্রিয়া কোন রাজনৈতিক দলের গঠনতন্ত্রে উল্লেখ নেই। এসব সক্ষমতা না থাকা সত্বেও তারা এ সিদ্ধান্ত নিয়ে অগ্রসর হন শুধুমাত্র জাতীয় নির্বাচনের দাবিকে পাশ কাটানোর জন্য এবং পূর্বের  মতো গায়ের জোরে মেয়র, চেয়ারম্যান-এর পদগুলো করায়ত্ব করে বিদেশিদের দেখানোর জন্য।

সরকার এবং নির্বাচন কমিশনের কঠোর সমালোচনা করে রিপন বলেন, বিএনপি একটি গণতান্ত্রিক দল হিসেবে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করাকে তার নীতি হিসেবে মেনে চলে। কিন্তু এ সরকারের আমলে এ ব্যাপারে জনগণের অভিজ্ঞতা মোটেই ভাল নয়। অপকৌশলের অংশ হিসেবে বিএনপি’র সম্ভাব্য প্রার্থী, নির্বাচনী এজেন্টদের সারাদেশে গ্রেফতার করে কারাগারগুলোতে মানবিক বিপর্যয়ের পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে যাচ্ছে। আমরা সরকারের এধরণের দমন-নিপীড়ণ নীতির তীব্র প্রতিবাদ করছি।

এদিকে মানবতাবিরোধী অপরাধে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা আলী আহসান মুজাহিদ এবং বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর রিভিউ রায় নিয়ে যে কোনো প্রকার নাশকতা বা অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে সকাল থেকে নয়াপল্টন এলাকায় আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর সতর্ক অবস্থান দেখা যায়। কাকরাইলের নাইটঅ্যাঙ্গেল মোড় থেকে ফকিরাপুল মোড় পর্যন্ত শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে গোলাম আকবর খন্দকার, আব্দুস সালাম আজাদ, আব্দুল লতিফ জনি, আসাদুল করিম শাহীন, শামীমুর রহমান শামীম, শাম্মী আক্তার, হেলেন জেরিন খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Previous articleসন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনে জনগণের সহযোগিতা চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী
Next articleঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিজিবি মোতায়েন