জেলা আ.লীগের বর্ধিত সভা বয়কট করলেন তিন এমপি ও জেলা পরিষদ প্রশাসক

0
107

বিশেষ প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা থেকে স্থানীয় সংসদ সদস্যরা তাদের অনুসারীদের নিয়ে বয়কট করেছেন। বিভিন্ন উপজেলা ও পৌর কমিটি গঠনে অনিয়ম এবং নেতাকর্মীদের আমন্ত্রণ না জানানোয় সংসদ সদস্য ও তাদের অনুসারীরা দলীয় বর্ধিত সভা বয়কট করেন। বুধবার দুপুরে সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আসন্ন ২৫ ফেব্রুয়ারির জেলা সম্মেলনকে কেন্দ্র সামনে রেখে এ বর্ধিত সভা অনুষ্টিত হয়েছিল।
বেলা ১টায় বর্ধিতসভা শুরু হলে বিভিন্ন ইউনিটের নেতারা এসে যোগ দেন। সভায় এক পর্যায়ে দোয়ারাবাজার উপজেলা কমিটির আহবায়কের নাম নিয়ে জেলা কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদকের সাথে সুনামগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ মহিবুর রহমান মানিকের সঙ্গে বাকবিতন্ডা হয়। এসময় বিভিন্ন উপজেলা কমিটি গঠনে অনিয়ম এবং বর্ধিতসভায় নেতাকর্মীদের আমন্ত্রণ না জানানোর অভিযোগ এনে বর্ধিত সভা বয়কট করেন জেলার তিন এমপি ও এক জেলা পরিষদ প্রশাসক। তারা হলেন, সুনামগঞ্জ-৫ আসনের এমপি মুহিবুর রহমান মানিক, সুনামগঞ্জ-১ আসনের মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, সংরক্ষিত আসনের এমপি অ্যাডভোকেট শাহানা রব্বানী, জেলা পরিষদ প্রশাসক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন। জেলা আ.লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট আফতাব উদ্দিন আহমদের নেতৃত্বে তারা বের হয়ে আসেন। পরে তারা শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেন নেতাকর্মীদের।

পরবর্তীতে জেলা পরিষদ রেস্ট হাউজে সংক্ষিপ্ত পথ সভায় বক্তব্য রাখেন, জেলা আ.লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট আফতাব উদ্দিন আহমদ, সুনামগঞ্জ-৫ আসনের এমপি মুহিবুর রহমান মানিক, সুনামগঞ্জ-১ আসনের মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, সংরক্ষিত আসনের এমপি অ্যাডভোকেট শাহানা রব্বানী, জেলা পরিষদ প্রশাসক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন। এসময় তারা বলেন, স্থানীয় এমপিদের পাশ কাটিয়ে সম্মেলন করার চেষ্টা করছেন জেলা নেতৃবৃন্দ। সংগঠনের ত্যাগীদের বাদ দিয়ে জেলা নেতৃবৃন্দ বর্ধিত সভায় স্বাধীনতা বিরোধীদের মঞ্চে জায়গা দিয়েছেন। এছাড়া তারা বিতর্কিত বিভিন্ন ইফনিট কমিটি ভেঙ্গে দেয়ার দাবি জানান।
এদিকে জেলা আ.লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মতিউর রহমানের সভাপতিত্বে প্রেসক্লাবের বর্ধিত সভায় বক্তব্য রাখেন, জেলা কমিটির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নুরুল হুদা মুকুট, সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আয়ূব বখত জসলুল, সহ-সভাপতি ছিদ্দিক আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাউল করিম শামীম, সাবেক এমপি সৈয়দ রফিকুল হকসহ বিভিন্ন ইউনিটের নেতৃবৃন্দ। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও তিনি উপস্থিত ছিলেন না।

Print Friendly, PDF & Email