টিসিবি’র পিয়াজ নিয়ে লঙ্কাকাণ্ড পথচারী গুলিবিদ্ধ

0
38

সিলেট: টিসিবি’র পিয়াজ নিয়ে লঙ্কাকাণ্ড ঘটেছে সিলেটে। ৪৫ টাকায় এক কেজি পিয়াজ কিনতে হাজারো মানুষের ভিড়। পিয়াজ কিনতে আসা মানুষকে সামাল দিতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়। ভিড়ের মধ্যে ভুলবশত পুলিশের শটগানের গুলিতে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন
এক পথচারী। ভিড়ে ধাক্কাধাক্কিতে আহত হন আরো এক মহিলা। তাদের সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল সকালে নগরীর রিকাবীবাজারে এ ঘটনা ঘটে। তবে এত কিছুর পরও বিকালে অনেকেই পিয়াজ না পেয়ে খালি হাতে ফিরেছেন।

ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়েও পিয়াজ পাননি তারা। এদিকে টিসিবি’র পিয়াজ কিনতে নগরীর জালালাবাদ পার্কের সামনে লাইনে দাঁড়ান সিলেটের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। আধাঘণ্টা দাঁড়িয়ে কিনলেন এক কেজি পিয়াজও। ওদিকে শুক্রবার সিলেট শহরতলী থেকে চোরাইপথে আনা ভারতীয় দুই ট্রাক পিয়াজ আটক করে র‌্যাব সদস্যরা।

পরে তারা ট্রাক সহ ওই পিয়াজের চালান শাহপরান থানায় জমা দেন। সিলেটের শাহপরান থানার ওসি আব্দুল কাইয়ূম চৌধুরী মানবজমিনকে জানিয়েছেন ‘র‌্যাবের হাতে প্রায় ৭ হাজার ২০০ কেজি পিয়াজ থানায় হস্তান্তর করা হয়। পরে ওই পিয়াজের চালানের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে আদালতের দ্বারস্থ হই আমরা। নিলামে বিক্রির অনুমতি চেয়ে আমরা সিলেট মেট্রোপলিটন প্রথম আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট জিয়াদুর রহমানের কাছে আর্জি জানাই। ম্যাজিস্ট্রেট আটক পিয়াজ টিসিবি’র মাধ্যমে বাজারে বিক্রির অনুমতি দেন।’ তিনি জানান, ‘আদালতের অনুমতি পাওয়ার পর রোববার রাতে পুলিশ টিসিবি’র কর্মকর্তাদের হাতে ওই পিয়াজ তুলে দেয়া হয়।’ এদিকে পিয়াজ সমঝে পাওয়ার পর সেগুলো ৪৫ টাকা দরে বাজারে বিক্রির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সেই অনুযায়ী সোমবার সকাল ১০টা থেকে নগরীর সুরমা মার্কেট, রিকাবীবাজার ও দক্ষিণ সুরমার মার্কাজ পয়েন্টে বিক্রি শুরু করা হয়। খোলাবাজারে ৪৫ টাকা দরে পিয়াজ বিক্রির খবর ছড়িয়ে পড়া মাত্র হাজার হাজার মানুষ সকাল থেকেই পিয়াজ ক্রয় করতে ভিড় জমান। সকালে নিজ অফিসে এসে পিয়াজ বিক্রির খবর পান সিলেটের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

তিনি অফিস থেকে নেমে সোজা চলে যান সুরমা মার্কেট পয়েন্টে। এ সময় সুরমা মার্কেট পয়েন্টে টিসিবি’র পিয়াজ কিনতে হাজারো মানুষের ভিড় ছিল। ভিড় সামাল দিতে তখন ওই এলাকায় মোতায়েন ছিল পুলিশ। লাইনে সবাইকে শৃঙ্খলাবদ্ধ রাখতে পুলিশ কাজ করছিলো। এমন সময় মেয়র গিয়ে জালালাবাদ পার্কের সামনে পুরুষ সারির পেছনে দাঁড়ান। তার সঙ্গে কয়েকজন কাউন্সিলর ও সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তারা ছিলেন। খবর পেয়ে সেখানে ছুটে যান সাংবাদিকরাও। এ সময় মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী মানবজমিনকে জানিয়েছেন, ‘পিয়াজের দাম এখন মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে। খবর পেয়ে আমিও পিয়াজ কিনতে লাইনে এসে দাঁড়িয়েছি। এক কেজি পিয়াজ হলে পরিবারের ১৫ দিন চলে যাবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।’ এ সময় মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী টিসিবি’র মাধ্যমে পিয়াজ বিক্রির সিদ্ধান্ত নেয়ায় সরকারকে ধন্যবাদ জানান। প্রায় আধা ঘণ্টা লাইনে দাঁড়ানোর পর নগদ ৪৫ টাকা দিয়ে এক কেজি পিয়াজ কিনে চলে যান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। তার সঙ্গে কয়েকজন কাউন্সিলরও পিয়াজ ক্রয় করেন। সুরমা পয়েন্ট থেকে পিয়াজ কিনে যাওয়ার সময় কয়েকজন ক্রেতা জানিয়েছেন রীতিমতো যুদ্ধ করে তারা পিয়াজ কিনেছেন। এই পিয়াজগুলো তেমন ভালো না হলেও এই পিয়াজ সোনার হরিণ। সুতরাং তারা এক কেজি পিয়াজ পেয়েই সন্তুষ্ট। টিসিবি’র কর্মকর্তা মো. ইসমাইল মজুমদার জানিয়েছেন, ‘আমাদের যে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে সেই নির্দেশনা মতো আমরা পিয়াজ বিক্রি করছি। প্রতিজন সর্বোচ্চ এক কেজি করে পিয়াজ কিনতে পেরেছেন। সাধারণ মানুষ যাতে উপকৃত হয় সে ব্যবস্থা করা হয়েছে।’ পিয়াজ নিয়ে লঙ্কাকাণ্ড হয়েছে নগরীর রিকাবীবাজারে। সেখানে সকাল ১০টা থেকে টিসিবি’র পিয়াজ বিক্রি শুরু হলে হাজার মানুষের ভিড় জমে যায়। ভিড় সামাল দিতে একাধিক লাইন করেও সংকুলান হচ্ছিলো না। পরে মোতায়েন করা হয় পুলিশ। পুলিশ সদস্যরা এসে লাইন সোজা করে একজন করে পিয়াজ দিচ্ছিলেন। এরপরও ধাক্কাধাক্কি সামাল দেয়া যাচ্ছিলো না। এক পর্যায়ে ধাক্কাধাক্কি শুরু হলে পুলিশ সদস্যরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করেন। এ সময় ভুলবশত এক পুলিশ সদস্যের শটগান থেকে গুলি বের হয়। এতে চন্দ্রকান্ত সিংহ নামের এক পথচারী আহত হন। এ সময় ভয়ে জনতা হুড়োহুড়ি করা কালে আরো এক নারী পড়ে গিয়ে আহত হন। তাদেরকে তাৎক্ষণিক সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সিলেট কোতোয়ালি থানার ওসি (তদন্ত) রিতা আক্তার জানিয়েছেন, টিসিবি পিয়াজ বিক্রির সময় লাইনে থাকা লোকজন ধাক্কাধাক্কি শুরু করে। এ সময় এক কনস্টেবলের লোড করা শটগান থেকে অসাবধানতাবশত গুলি বের হয়ে চন্দ্রকান্ত সিংহ নামের এক পথচারীর হাতে লাগে। তাকে ওসমানী হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া ধাক্কাধাক্কির মধ্যে এক নারী ক্রেতা আহত হয়েছেন। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ৪৫ টাকায় পিয়াজ কিনতে বিকাল পর্যন্ত হাজারো মানুষের ভিড় ছিল। কারণ সিলেটের বাজারে পিয়াজের দাম আকাশচুম্বী। পাইকারি বাজারে ১৭০-১৮০ টাকা দরে পিয়াজ বিক্রি হলেও খুচরা বাজারে সেটি ২০০ টাকা ছাড়িয়ে গেছে। ফলে স্বল্পমূল্যে পিয়াজ কিনতে লোকজন ভিড় করেন। এতে করে রিকাবীবাজার এলাকায় যানজটও দেখা দেয়। নগরীর দক্ষিণ সুরমা মার্কাজ পয়েন্টেও একই অবস্থা ছিল। পিয়াজ কিনতে ভিড় করেছিলেন হাজারো মানুষ। এ কারণে ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়েও বিকালে খালি হাতে ফিরতে হয়েছে অনেককেই।

Print Friendly, PDF & Email