দুদকের জেরার মুখে সুনামগঞ্জের আওয়ামী লীগ নেতা ইমন

0
161

নিজস্ব প্রতিবেদক : দুর্নীতির অভিযোগের বিষয়ে জাতীয় পাওয়ার গ্রিডের সাবেক পরিচালক, সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এনামুল কবির ইমনকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। কমিশনের তলবে বুধবার সকালে দুদকের প্রধান কার্যালয়ে হাজির হওয়ার পর তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগের বিষয়ে এ জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করা হয়।

এর আগে, গত ৬ জানুয়ারি দুদকের প্রধান কার্যালয় থেকে এ বিষয়ে পৃথক চিঠি পাঠানো হয়েছে। ইমনের বিরুদ্ধে অভিযোগের অনুসন্ধান কর্মকর্তা হিসেবে সংস্থাটির উপ-পরিচালক মো. নূরুল হুদা এ চিঠি পাঠিয়েছিলেন।
দুদকের একটি সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।
জানা গেছে, জাতীয় পাওয়ার গ্রিডের সাবেক পরিচালক এনামুল কবির ইমনের বিরুদ্ধে তদবির বাণিজ্য, সরকারি কাজের কমিশন আদায় ও দুর্নীতির মাধ্যমে সরকারি অর্থ আত্মসাতসহ বিপুল পরিমাণ অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে। জ্ঞাত আয় বহির্ভুত তার বিপুল অবৈধ সম্পদের খোঁজে এরই মধ্যে মাঠে নেমেছে দুদক।
এ বিষয়ে অনুসন্ধান করে প্রতিবেদন দাখিল করতে দুদকের উপ-পরিচালক মো. নূরুল হুদাকে দায়িত্ব দিয়েছে কমিশন।
ইমনের কাছে পাঠানো দুদকের চিঠিতে বলা হয়েছে, তার বিরুদ্ধে তদবির বাণিজ্য ও সরকারি অর্থ আত্মসাতসহ বিভিন্ন অভিযোগের সুষ্ঠু অনুসন্ধানের স্বার্থে বক্তব্য গ্রহণ করা প্রয়োজন। এ বিষয়ে ১৫ জানুয়ারি সকাল ১০টায় তাকে দুদকে হাজির হতে হবে। অন্যথায় অভিযোগের বিষয়ে তার কোন বক্তব্য নেই বলে দুদক মনে করবে। তাকে নিজের ও স্ত্রী, পুত্র, কন্যাসহ তার উপর নির্ভরশীল ব্যক্তিদের জাতীয় পরিচয়পত্র ও পাসপোর্টের (যদি থাকে) ফটোকপি সঙ্গে আনতে বলা হয়েছে।
একইসঙ্গে সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠানো দুদকের চিঠিতে ইমনের বিভিন্ন দুর্নীতির তথ্য উল্লেখ করা হয়েছে। ওই চিঠিতে সুনামগঞ্জ পাওয়ার গ্রিড কোম্পানির জন্য বিদ্যুত সাব স্টেশন নির্মাণ প্রকল্পের অনুকূলে আরজ আলীর জমির হুকুম দখলের বিষয়ে ১৫ জানুয়ারির মধ্যে প্রয়োজনীয় নথিপত্র চাওয়া চাওয়া হয়। এ বিষয়ে আরো কোন রেকর্ড ও নথি থাকলে তাও দিতে অনুরোধ করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email