নিজের তৈরি বাড়ী থেকে বিতাড়িত মাহফুজ মিয়া ও তার পরিবার

0
346

নোয়াখালী প্রতিনিধি : সৎ ভাইদের সাথে নিয়ে একান্ন বর্তী পরিবারের ঐতিহ্য নিয়ে থাকার স্বপ্ন ছিল মাহফুজ মিয়ার। নিজের ব্যবসার পাশা-পাশি কাঁচা মালের ব্যবসা করে তিল তিল করে টাকা জমা করেন তিনি। জমি কিনে বাড়ী নির্মান করেন। সৎ ভাইদের নিয়ে বসবাস করতে থাকেন বাড়ীতে। তিনি বিরোধী রাজনৈতিক দলের কর্মী থাকায় সৎ ভাইয়েরা তার সম্পত্তি ও বাড়ী অত্মসাৎ করার জন্য গোপনে ফন্দি আটে। বর্তমান ক্ষমতাসীন দলে যোগদিয়ে ক্রমশ ষড়যন্ত্রর ফাঁদ পাততে থাকে। ঘুনাক্ষরেও প্রথমদিকে টের পাননি মাহফুজ। সু-কৌশলে মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে তাকে পর্যদুস্ত করা হয়। এক সময় খোলস পালটায় সৎভাইয়েরা। প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতাদের ছত্র ছায়ায় নিপীড়ন শুর করা হয় তাকে ও তার স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌসকে। এক পর্য্যায়ে জোর করে বাড়ী থেকে স্ত্রী সন্তানসহ বের করে দেয় সৎভাইয়েরা। ঘটনার বিবরনে প্রকাশ- নোয়াখালী জেলার কোম্পানীগঞ্জ থানার চর কাঁকড়া গ্রামের আবুল খায়েরের প্রথম স্ত্রীর সন্তান মাহফুজ মিয়া। পিতার সাথে সংসার চালানোর তাগিদে লেখা পড়া ছেড়ে ব্যবসা শিখতে থাকেন। তার মাতা মোহসেনা বেগম মৃত্যু বরণ করলে মাহফুজ মিয়ার পিতা আবুল খায়ের ২য় বিবাহ করেন। ২য় স্ত্রী ঘরে জন্ম নেন দুই পুত্র সন্তান। তারা বড় হয়ে মাহফুজ মিয়ার টাকার উপরই নির্ভরশীল ছিল। মাহফুজ মিয়া হাড় ভাঁঙ্গা পরিশ্রম করে বসুর হাট বাজারে গড়ে তুলেন ব্যবসা প্রতিষ্টান। তার আর্থিক অবস্থার উন্নতি হলে পাশাপাশি শুরু করেন কাঁচা মাল আমদানী ও রপ্তানী ব্যবসা। রাজনৈতিকভাবে বি,এন,পি করতেন তিনি। ব্যবসার টাকা দিয়ে জমি কিনে বাড়ী নির্মান করেন। সহজ সরল মাহফুজ মিয়া

বিয়ে করেন পাশ্ববর্তী বেগমগঞ্জ থানার কাদির পুর গ্রামের আব্দুল লতিফের মেয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস কে। তাদের ঘরে দুই মেয়ে ও এক ছেলে জন্ম নেয়। এদিকে তার ভূমি দখল ও বাড়ী দখল করার গোপন ষড়যন্ত্র করে সৎ ভাইয়েরা। তারা ক্ষমতাসীন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের স্থানীয় শাখায় যোগদান করে নেতাদের সাথে সখ্যতা গড়ে তোলে। সু-কৌশলে মাহফুজ মিয়াকে মামলার আসামী করা হয়। নেতাদের ক্ষেপিয়ে তোলা হয় তার বিরুদ্ধে। অবশেষে গত- ২০শে জানুয়ারী/২০১৬ইংরেজী সালে তাকে, তার স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস, মেয়ে ফাহমিদা সুলতানা পুষ্পিতা, ছেলে রাহিম মাহফুজ ও মেয়ে নাদিয়া মাহফুজসহ তাদের বাড়ী থেকে জোর করে বের করে দেয়া হয়। দলিল নিয়ে থানায় গিয়েও প্রভাবশালী নেতাদের কারনে সুবিচার পাননি মাহফুজ মিয়া। স্ত্রী সন্তান নিয়ে আত্মীয়দের বাসার দ্বারে দ্বারে ঘুরতে থাকেন। এক সময় স্ত্রী তাকে শশুর বাড়ীতে নিয়ে যান কিন্তুু তার স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস এর ভাইদের নামে প্রভাবশালী মহিলা দ্বারা হত্যা মামলার কারনে পুলিশ ও র‌্যাবের তৎপরতায় এবং স্বামী মাহফুজ মিয়াকে অন্যায় গ্রেফতারের ভয় ও স্থানীয় এম, পির আত্মীয়দের হুমকিতে বাধ্য হয়ে শশুর বাড়ী ত্যাগ করেন। স্ত্রী সন্তান নিয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন অসহায় মাহফুজ মিয়া। তাকে মিথ্যা মামলা মোকদ্দমায় জড়ানো হতে পারে বলে তিনি জানান। এদিকে জবর দখল পাকা-পোক্ত করতে তার সন্তানদের অপহরন করে গুম করার হুমকি দিচ্ছে সৎ ভাইগনসহ স্থানীয় সন্ত্রাসীরা। তার স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস সেইভ দ্যা চিলড্রেন নামক একটি সংস্থার স্মরণাপন্ন হয়েছেন। প্রশাসনিক হস্তক্ষেপ, নিরপেক্ষ বিচার ব্যবস্থার মাধ্যমে তাকে পুনঃ প্রতিষ্টিত করা হোক এই দাবী সুশীল সমাজের।

Print Friendly, PDF & Email