রাণীগঞ্জ ইউনিয়নে লড়াই হবে ত্রিমুখি

0
156

জগন্নাথপুর থেকে হিফজুর রহমান তালুকদার জিয়া: আজ ৪ জুন শনিবার জগন্নাথপুর উপজেলার ৬নং রাণীগঞ্জ ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে জগন্নাথপুর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব ধরণের প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছে। মামলা সংক্রান্ত জটিলতায় বারবার নির্বাচন পিছিয়ে যাওয়ায় রাণীগঞ্জ ইউনিয়নে নির্বাচনের আমেজে ভাটা পড়েছে। এখনো অনেকে শঙ্কায় রয়েছেন, অবশেষে নির্বাচন হবে কি না। রাণীগঞ্জের নির্বাচন ৩ মাসের জন্য স্থগিত করার পর প্রার্থীদের সকল প্রকার প্রচার-প্রচারণা বন্ধ হয়ে যায়। তবে গত বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ৯ টার দিকে রাণীগঞ্জ ইউনিয়নে নির্বাচন হওয়ার পক্ষে নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনার আলোকে অবশেষে নির্বাচন হচ্ছে। বৃহস্পতিবার রাতে নির্বাচন হওয়ার খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে প্রার্থীদের সমর্থকরা রাতেই প্রার্থীদের পোস্টার ও পেস্টুন লাগিয়ে আবারো প্রচারণা চালান। তবে নির্বাচনী আচরণবিধি অনুযায়ী নির্বাচনের ২৪ ঘন্টা আগে প্রার্থীদের সকল প্রকার প্রচার-প্রচারণা বন্ধ থাকায় নির্বাচনের শুরুতেই প্রার্থীদের প্রচারণা শেষ হয়ে যায়। যে কারণে রাণীগঞ্জ ইউনিয়নের এবার সাদামাটা নির্বাচন হবে। এদিকে-শেষ সময়ে এসে প্রার্থীরা তাদের বিজয় নিশ্চিত করতে সর্বশক্তি নিয়ে কাজ করছেন। প্রবাসী অধ্যূষিত জগন্নাথপুরে নির্বাচন এলেই কালো টাকার ছড়াছড়ি হয়ে থাকে। টাকার বিনিময়ে ভোট কেনার একটি প্রথা জগন্নাথপুরে রয়েছে। সেই প্রথা অনুযায়ী নির্বাচনের আগের রাত হচ্ছে, কাল রাত। এ রাতে যে যতো বেশি টাকা বিতরণ করতে পারবেন, সে ততো বেশি বিজয়ী হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। যার ফলাফল নির্বাচনের দিন প্রতীয়মান হয়ে থাকে। এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে প্রতি বারই বসন্তের কোকিল নামে পরিচিত প্রবাসী প্রার্থীরা টাকার জোরে বিজয়ী হয়ে থাকেন বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

এবারের নির্বাচনে ৬নং রাণীগঞ্জ ইউনিয়নে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান আমেরিকা প্রবাসী আব্দুল হাফিজ (মোটরসাইকেল), আওয়ামীলীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী শহিদুল ইসলাম রানা (নৌকা), বিএনপির চেয়ারম্যান প্রার্থী সামছুল ইসলাম (ধানের শীষ) ও স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী সুজায়েল আহমদ দুলন (ঘোড়া)। এ ইউনিয়নের সংরক্ষিত ৩ টি ওয়ার্ডে ১১ জন নারী সদস্য ও সাধারণ ৯ টি ওয়ার্ডে ৪৬ জন সদস্য প্রার্থীসহ মোট ৬১ জন প্রার্থী অংশ গ্রহন করেছেন। তবে নির্বাচনে হেভিওয়েট স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মজলুল হক নির্বাচন বর্জন করায় এবার লড়াই হবে ত্রিমুখি। মুল প্রতিদ্বন্ধিতায় আসতে পারেন আ.লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী শহিদুল ইসলাম রানা, বিএনপি মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী সামছুল ইসলাম ও আ,লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান আমেরিকা প্রবাসী আব্দুল হাফিজ বলে সরজমিনে স্থানীয় ভোটাররা জানিয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email