নৌকার বিপক্ষে কাজ করলে কঠিন শাস্তি পেতে হবে: জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি

0
370

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি: নৌকা আওয়ামী লীগ তথা সর্বস্থরের জনতার প্রতীক। এই প্রতীক হচ্ছে উন্নয়নের। উন্নয়নের প্রতীক নৌকায় ভোট প্রদান করলে দেশের সাথে জগন্নাথপুরও এগিয়ে যাবে। জগন্নাথপুরবাসীর উন্নয়নের জন্য বাংলাদেশের সফল প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাচনে আকমল হোসেনসহ অন্যান্য প্রার্থীদের নৌকা প্রতীক দিয়ে আপনাদের দরজায় পাঠিয়ে দিয়েছেন। তাই উন্নয়নের স্বার্থে প্রধানমন্ত্রীর মনোনীত প্রার্থীদের বিজয়ী করতে হবে। তাঁরা বিজয়ী হলে জগন্নাথপুর উপজেলাকে একটি আধুনিক ও মডেল উপজেলা হিসেবে সমগ্র দেশের কাছে তুলে ধরবেন। শুক্রবার বিকেলে জগন্নাথপুর বাজারে জগন্নাথপুর উপজেলার প্রতিটি ছাত্রলীগের ইউনিটিকে নিয়ে জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আয়োজিত কর্মী সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফজ্বলে রাব্বি স্মরণ উপরোক্ত কথা বলেন। তিনি সংগঠনের বিরোদ্ধে কাজ করতে যাওয়া ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্ধকে হুশিয়ারী প্রদান করে বলেন, সংগঠন বিরোধী কাজ করে যাওয়া যাবে। কিন্তু এই পরিনাম ভংঙ্খর হবে। যারা অভিভাবক সংগঠন আওয়ামী লীগের নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করবেনা। তাদের স্থান ছাত্রলীগে হবে না। আর যারা অভিভাবক সংগঠন আওয়ামী লীগ ও নেত্রীর নির্দেশ মেনে চলবে তাদের জন্য পুরুস্কার রয়েছে। তিনি উপজেলা ছাত্রলীগের প্রতিটি ইউনিটকে দলীয় প্রার্থীদের পক্ষে কাজ করার আহ্বান জানান। যদি এর পরও নৌকার বিপক্ষে কাজ করতে কাউকে দেখা যায়। তাহলে কঠিন শাস্তি পেতে হবে।
উপজেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সহ-সভাপতি সাফরোজ ইসলাম মুন্না’র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক রুমেন আহমদের পরিচালনায় প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও বর্তমান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক মুজিবুর রহমান মুজিব ও বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম সিপন। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সভাপতি শাহ্ শাহেদ, সহ-সভাপতি মুরাদ আহমদ, আজমল হোসেন মিটু, সায়মন হোসেন রুমেন, যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল মুকিত, হিবলু তালুকদার, তোহা চৌধুরী, সদস্য আব্দুল মুমিন নাসির, শাহ রুয়েল, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা শাহান আহমদ, আল আমিন, জগন্নাথপুর উপজেলা ছাত্রলীগের বিভিন্ন ইউনিটের দায়িত্বপ্রাপ্ত ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দের মধ্যে জাহাঙ্গীর আলম জামাল, সাজু মিয়া, ইসমাঈদ আলী, জাহিদ আলম রিয়াদ, এস.আর দূর্জয়, মাসুম হোসাইন, তানভির আহমদ, জুবায়ের আহমদ, সায়াদ আহমদ ভূঁইয়া, মাহবুব তালুকদার ও জুয়েল হোসেন প্রমূখ।

Print Friendly, PDF & Email