২০২২ সালের প্রাথমিকের বইয়ের চাহিদা দেওয়ার নির্দেশ

0
432

২০২২ শিক্ষাবর্ষের প্রাথমিক স্তরের বিনামূল্যে দেওয়ার জন্য মাঠ পর্যায় থেকে বইয়ের চাহিদা চেয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর (ডিপিই)। উপজেলা ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের শিক্ষার্থীদের তথ্য সংগ্রহ করে আগামী ৪ এপ্রিলের মধ্যে বিভাগীয় অফিসে পাঠাতো হবে। বিভাগীয় অফিস তা যাচাই-বাছাই করে ৭ এপ্রিলের মধ্যে ডিপিইতে পাঠাতে হবে।

বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ) প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত চিঠিতে বলা হয়, বইয়ের তথ্য পাঠানোর ক্ষেত্রে ২০১৯ ও ২০২০ শিক্ষাবর্ষ এবং প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা ২০১৮, ২০১৯ ও ২০২০ সালের অধিভূক্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা পর্যালাচনা করে ২০২২ শিক্ষাবর্ষের পাঠ্যপুস্তকের চাহিদা তৈরি করতে হবে। দেশের সব বিভাগীয় কার্যালয়, জেলা ও উপজেলা শিক্ষা অফিসে চিঠি দিয়ে এ সংক্রান্ত তথ্য চাওয়া হয়েছে।

৭ এপ্রিলের মধ্যে ২০২২ শিক্ষাবর্ষের পাঠ্যপুস্তকের চাহিদা না পাওয়ার কারণে কোন প্রকার জটিলতা সৃষ্টি হলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা ব্যক্তিগতভাবে দায়ী থাকবেন বলে চিঠিতে সতর্ক করা হয়েছে।

অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা বলছেন, প্রতি বছর বিনামূল্যে বই ছাপানোর আগে মাঠ থেকে বইয়ের সঠিক তথ্য সংগ্রহ করে তারপর দরপত্র করা হয়। প্রকৃত শিক্ষার্থীরা পাশাপাশি অতিরিক্ত আরও ৫ শতাংশ বই বাফার স্টক (দুর্যোগকালীন সময়ের জন্য) ছাপানো হয়।

চিঠিতে বলা হযেছে, ২০২২ শিক্ষাবর্ষের প্রাক-প্রাথমিক এবং প্রাথমিক স্তরের পাঠ্যপুস্তকের চাহিদা ডিপিই নিদিষ্ট ছকে আগামী ৪ এপ্রিলের মধ্যে আঞ্চলিক শিক্ষা অফিসে পাঠাতে হবে। আঞ্চলিক অফিস তা যাচাই-বাছাই করে আগামী ৭ এপ্রিলের মধ্যে ডিপিই-তে পাঠাতে হবে।

Print Friendly, PDF & Email