খালেদাকে সাজা দিলে সরকারের বিদায় ঘণ্টা বাজবে: খন্দকার মাহবুব

0
210

ঢাকা: মিথ্যা মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে সাজা দিলে সরকারের বিদায় ঘণ্টা বেজে যাবে বলে মন্তব্য করেছেন  চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন। তিনি বলেছেন, মিথ্যা মামলায় বেগম খালেদা জিয়াকে সাজা দেয়া হলে এদেশের জনগণ তা কখনোই মেনে নেবে না। যেদিন তাকে সাজা দেয়া হবে সেদিন থেকেই সরকারের বিদায় ঘণ্টা বেজে উঠবে। শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক নাগরিক প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব বলেন। বিএনপি চেয়ারপারসনের বিরুদ্ধে সকল মিথ্যা মামলা এবং চার্জশিট প্রত্যাহারের দাবিতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে এই সমাবেশের আয়োজন করে জাতীয়তাবাদী নাগরিক দল।

খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, খালেদা জিয়া তার মামলা নিয়ে উদ্বিগ্ন নন। কারণ তিনি জানেন, এসব রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা। সুতরাং এ নিয়ে তিনি টেনশন করেন না। দেশের পরিস্থিতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আজকে দেশে কি হচ্ছে? শুধু দুর্নীতি আর মানি লন্ডারিং। কিন্তু মামলা হচ্ছে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে। তবে আল্লাহর রহমতে তিনি দুর্নীতির মামলা থেকে খালাস পেয়েছেন। এব্যাপারে সরকার যে আপিল করেছে সেই আপিল বিভাগেও তিনি খালাস পাবেন বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন মাহবুব হোসেন। বর্তমান অবৈধ সরকারের আমলে টাকা পাচারের প্রসঙ্গে প্রবীণ এই আইনজীবী বলেন, বর্তমান অবৈধ সরকারের আমলে হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে এবং সুইস ব্যাংকে পাচার হয়েছে। পত্রিকার খবর অনুযায়ী ২০১৫ সালে ২০০ কোটি টাকার বেশি পাচার হয়েছে। যারা এসব টাকা পাচার করেছে তাদের নামের তালিকা নিয়ে শ্বেতপত্র প্রকাশের জন্য দাবি জানান তিনি। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উদ্দেশে তিনি বলেন, আমি বলবোÑ আপনার পদক্ষেপ নিন এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিন। যারা বর্তমান অবৈধ সরকারের অধীনে টাকা পাচার করেছে তাদের নামের তালিকা প্রকাশ করুন। জাতি এসব জানতে চায়। বিরোধী নেতাকর্মীদের হয়রানি করা প্রসঙ্গে মাহবুব হোসেন বলেন, আজ পবিত্র রমজান মাসেও আমরা সুখে শান্তিতে নেই। বিএনপির বহু নেতাকর্মী আজ অবৈধ সরকারের দ্বারা নির্যাতিত। তারা ঘরে থাকতে পারছে না। তিনি বলেন, জুলুমবাজ ও মামলাবাজ সরকারের পতন ঘটাতে হলে আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলন করতে হবে। সরকারের অন্যায় থেকে মুক্তি পেতে হলে সব গণতান্ত্রিক শক্তিগুলোকে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে।

সংগঠনের সভাপতি সৈয়দ মো. ওমর ফারুক পীর সাহেবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, স্বাধীনতা ফোরামের সভাপতি আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ জাবেদ ইকবাল, এলডিপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাৎ হোসেন সেলিম, কল্যাণ পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান সাহিদুর রহমান তামান্না, কৃষকদলের শাহজাহান মিয়া প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email