Home গল্প মানুষ মানুষের যম

মানুষ মানুষের যম

717
0

রুদ্র মুহাম্মদ বশির:
আজ পৃ্থিবীর চিত্রটা দেখলে মনে হয়, আমরা কোথায় বসবাস করছি ? যেখানে মানু্ষ মানুষের যম। মানু্ষ পৃথিবীতে আল্লাহর খলিফার।খলিফা শব্দের অর্থ প্রতিনিধি। আর প্রতিনিধির দায়িত্ব হলো সৃষ্টিকে রক্ষা করা,ধ্বংস করা নয়। এরা কেমন মানুষ ? যারা মানু্ষ হত্যায় নিমজ্জিত। তারা কি চায়? আসলে আমি তাদের উদ্দেশ্যটাই বুঝতে অক্ষম। আমি যদি ভুল না বলে থাকি, অস্ত্র দ্বারা পৃথিবী জয় করা আদৌ সম্ভব হবেনা। পৃথিবী জয় করার একটা মাত্র উপায় আছে, তা হলো মানু্ষকে ভালোবাসা। কিছু মানুষ আছে, যারা মানুষকে তো ভালোবাসেই না, বরং মানুষকে কীভাবে ধ্বংস করা যায়, সেই খেলায় মেতে ওঠেছে। এভাবে কি কোনো জিনিস বা কোনো মতবাদ প্রচার করা সম্ভব? নিরীহ মানুষ মরে, তাদের মা বাবার কতো আহাজারি ! কতো আর্তনাদ ! একবার যদি নিজের উপর এনে চিন্তা করতো, তাহলে কোনোদিন তারা এই হীন্য কাজ করতে পারতো না। এরা পাপিষ্ঠ, স্রষ্টাও তাদের ক্ষমা করবেনা।অথচ মানুষ মানুষের জন্য, একজন বিপদে পড়লে, আরেক জনের দায়িত্ব হলো, তাকে উদ্ধার করা। তাকে সমবেদনা জানানো, তার দুঃখে দুঃখী হওয়া। পৃথিবীতে যত জাতের যত ধর্মের মানুষ থাকুক কেন, আমরা সবাই এক স্রষ্টার সৃষ্টি,আমরা সবাই এক।

কবি বলেছেন, সবার উপরে মানুষ সত্য, তাহার উপর নাই।ধর্ম যার পালন করলে কোনো অসুবিধা নাই, যদি মানুষের মূলমন্ত্রটি টিক থাকে। মানু্ষ মারা বা মানুষকে ভুল পথ দেখিয়ে কেউ তাদের হীন্য লক্ষে পৌছতে পারেনি, কোনোদিন পারবেও না। আমি বলবো এরা মানুষের হিত সাধন কখনো করতে পারবেনা। এরা ধ্বংস হবে! ধ্বংস হবে, অবশ্যই ধ্বংস হবে।

লেখক: সহকারী অধ্যাপক, বাংলা বিভাগ- সিলেট ক্যামব্রিয়ান স্কুল এন্ড কলেজ।

Previous articleভুঁইফোড় সংগঠনে অতিথি আ.লীগের ‘বেকার’ নেতারা
Next articleউপজেলা নির্বাচন উপলক্ষ্যে এসএমপির গণবিজ্ঞপ্তি