ঘুম ভেঙে যায় বারবার !

0
641

নিউজ ডেস্ক: রাতে পর্যাপ্ত ঘুম সুস্বাস্থ্যের জন্য জরুরি। অনেকেই আছেন যাদের রাতে ঘুমানোর পরও বেশির ভাগ সময় ঘুম পায়। এর কারণ আপনার বর্তমানের ঘুমানোর পদ্ধতিতে গোলমাল আছে। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে ফ্যামিলি হেলথ ফ্রিডম নেটওয়ার্ক জানিয়েছে, আধুনিক জীবনের ঘুমের কিছু ভুল এবং কীভাবে শুধরানো যায় এ বিষয়ে কিছু কথা।
একবার ভাবুন আপনার ঘুমটা কেমন-খুব গভীর না কি পাতলা? সারারাত হয় তো ঘুমালেন কিন্তু সকালে উঠেও কি গা ম্যাজম্যাজ করে। আর যদি এমনটা হয় যে আপনার ঘুম ভেঙে যায় বারবার। আবার এমনও হতে পারে ঘুমাতে যেতে আপনার বেশ বেগ পেতে হয়। এর ফলে আর সকালে ঘুম থেকে ঠিকমতো উঠা হয় না, অ্যালার্ম ঘড়ি সকালে বন্ধ হয়ে যায়; এভাবে দিন শুরু হয়। দিন শেষে আবারো একই ঘটনা ঘটে। আপনি সপ্তাহ শেষে ক্লান্তবোধ করেন এবং ছুটির দিনে সারা দিনই ঘুমাতে চান।
হয়তো আগেভাগে ঘুমাতে যাচ্ছেন, তিন থেকে চার ঘণ্টা ঘুমাচ্ছেন এবং মাঝরাতে এমনি এমনি শরীর জেগে যাচ্ছে। এরপর আপনি হয়তো কয়েক ঘণ্টা জেগে থাকেন। একটু পর আবার ঘুম পায় আর রাতের বিশ্রামের জন্য আবার ঘুমাতে চলে যান। একে বলে বাই-মডেল স্লিপ প্যার্টান। এ ছাড়া প্রায়ই লাইট জ্বালিয়ে বা মৃদু আলোতে ঘুমান এটা একটা ফ্যাশনে পরিণত হয়েছে। এভাবেই এখন অনেকে ঘুমায়, যা ঠিক নয় বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।
যদি সারা দিন কাজ করেন এবং রাতে জেগে যান এর মানে আাপনার শরীর বাই মডেল স্লিপ প্যাটার্নের। এই প্যাটার্নকে পরিবর্তন করা একটু কঠিন। তবে একটু কৌশল করতে পারেন। নিজেকে ঘুম থেকে জাগার নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত ঘুমাতে দিতে রাতের শুরুতে অতিরিক্ত কয়েক ঘণ্টা ঘুমিয়ে নিন। একটি মাইন্ড সেটআপ করে নিন মাঝ রাতে দুই তিন ঘণ্টা আপনি জাগবেন। এই সময় শখের কাজ করুন বা নিজের কাজ করুন। ঘুমানোর সময় লাইট বন্ধ করুন, টিভি বন্ধ করুন, শান্ত গান শুনুন বা মেডিটেশন করুন। এতে আপনি ঘুমানো এবং জাগার সময়ের সাথে অভ্যস্ত হয়ে পড়বেন এবং পরের দিন নির্দিষ্ট সময়ে কাজ শুরু করবেন ।