১০ বেসরকারি মেডিক্যালকে এক কোটি টাকা করে জরিমানা

0
613

ঢাকা: ভর্তি পরীক্ষার নম্বরের শর্ত পূরণ না হওয়ার পরও ১৫৩ শিক্ষার্থীকে ভর্তি করায় ১০ বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজকে এক কোটি টাকা করে জরিমানা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। আগামী ১০ দিনের মধ্যে এই জরিমানার অর্থের অর্ধেক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে এবং বাকি অর্ধেক কিডনি ফাউন্ডেশন ও লিভার ফাউন্ডেশনকে দিতে বলা হয়েছে। সেই সঙ্গে জরিমানার টাকা পরিশোধসাপেক্ষে ওই ১৫৩ শিক্ষার্থীকে মানবিক বিবেচনায় রেজিস্ট্রেশন কার্ড ও প্রবেশপত্র দেওয়ার নির্দেশও দিয়েছেন আদালত।

ওইসব বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজের চেয়ারম্যান ও অধ্যক্ষদের দেওয়া ব্যাখ্যা সন্তোষজনক না হওয়ায় প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ আজ রবিবার এই আদেশ দেন। আদালতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র আইনজীবী মাহবুবে আলম। অপরদিকে ১৫৩ শিক্ষার্থীর পক্ষে ছিলেন সিনিয়র আইনজীবী আবদুল বাসেত মজুমদার ও এ জে মোহাম্মদ আলী। এর আগে গত ১০ আগস্ট ওই ১০ বেসরকারি মেডিক্যালের বিরুদ্ধে কেন ব্যবস্থা নেওয়া হবে না এবং কেন তাদের জরিমানা করা হবে না- তা জানতে চান আপিল বিভাগ। সেই সঙ্গে ওইসব বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজের চেয়ারম্যান ও অধ্যক্ষকে ২১ আগস্টের মধ্যে এর ব্যাখ্যা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছিলেন আপিল বিভাগ।

মামলার বিবরণীতে জানা যায়, ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস/বিডিএস কোর্সে শিক্ষার্থী ভর্তি পরীক্ষায় একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ নম্বর প্রাপ্তির বাধ্যবাধকতা আরোপ করেছিল স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। একইরকম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষও সিদ্ধান্ত দিয়েছিল। তবে ওই শর্ত পূরণ না হওয়ার পরও ১৫৩ শিক্ষার্থীকে ভর্তি করে ১০টি মেডিক্যাল কলেজ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ওই ১০টি বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি হওয়া ১৫৩ শিক্ষার্থীর প্রথম পর্বের (ফার্স্ট প্রফেশনাল এক্সামিনেশেন) রেজিস্ট্রেশন কার্ড ও প্রবেশপত্র আটকে দেয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের ওই সিদ্ধান্তের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে ১৫৩ জন হাইকোর্টে রিট করেন। ওই রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে চলতি বছরের ১৩ জুন হাইকোর্টের একটি দ্বৈত বেঞ্চ রুলসহ অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ দেন। হাইকোর্ট রিট আবেদনকারী শিক্ষার্থীদের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে রেজিস্ট্রেশন কার্ড ও প্রবেশপত্র দিতে বলেন। ওই আদেশের বিরুদ্ধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ লিভ টু আপিল করেন। সেই লিভ টু আপিলের শুনানি শেষে আজ আপিল বিভাগ এই আদেশ দেন।

Print Friendly, PDF & Email